হজরত ইউসুফ (আঃ) এর মাজারে হামলা করেছে ইসরাইল

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ২২, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : হযরত ইউসুফ (আঃ) সালামের সমাধিতে হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। জর্ডান নদীর পশ্চিম তীর ফিলিস্তিনের নাবলুসে অবস্থিত সমাধিতে হামলার ঘটনায় ৫ ফিলিস্তিনি নাগরিক আহত হয়েছেন। জানা গেছে, নাবলুস উপশহরে বসবাসরত শতাধিক ইয়াহুদি ইসরাইলি সেনাদের সহযোগিতায় হজরত ইউসুফ আলাইহিস সালামের মাজারে এ আত্মঘাতী হামলা চালানো হয়। এ সময় সেখানকার স্থানীয় ফিলিস্তিনিরা হামলায় বাধা দিলে ইসরাইলি সেনারা আক্রমণ শুরু করে দেয়। এতে ৫ ফিলিস্তিনি আহত হন।

যুদ্ধ-বিধ্বস্ত জনপদ ফিলিস্তিন। যেখানে রয়েছে অগণিত-অসংখ্য নবি-রাসুলদের সমাধি। জেরুলজালেমে অবস্থিত পবিত্র মসজিদ আকসাও দখল করে নিয়েছে ইসরাইল। ধীরে ধীরে দলখল করছে ফিলিস্তিনি জনপদ। ফিলিস্তিনের বাড়ি-ঘর ধ্বংস করে ইয়াহুদি বসতি স্থাপন করছে। পুরো ফিলিস্তিন ও মুসলিম নির্দশন নিশ্চিহ্ন করতে ইসরাইলি বাহিনীর এটি একটি ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র। হজরত ইউসুফ (আঃ) এর মাজারে হামলাও ধ্বংস কার্যক্রমের অংশ।

আল-আলম নিউজ চ্যানেল সূত্রে জানা যায়, নাবলুস উপশহরের শতাধিক ইয়াহুদি অধিবাসী ইসরাইলি সেনাদের সহযোগিতায় হজরত ইউসুফ আলাইহিস সালামের মাজারে হামলা চালায়। এ সময় সেখানকার স্থানীয় ফিলিস্তিনিরা মাজারে হামলায় বাধা দেয়। মাজারে হামলা চালাতে বাধা দিলে ইসরাইলি সেনাবাহিনী ফিলিস্তিনিদের উপর আক্রমণ করে বসে। ইসরাইলি সেনাবাহিনীর আক্রমণে ৫ ফিলিস্তিনি আহত হয়েছে।

উল্লেখ্য, রামাল্লা, আল-খলিল ও বাব আল-মাগরেবায় পৃথক পৃথক হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। ইসরাইলি সেনাদের সঙ্গে সঙ্গে ইয়াহুদিরাও এসব স্থাপনা হামলা চালিয়ে আসছে। লক্ষ্য একটাই পুরো মসজিদ আল-আকসা ইয়াহুদিদের দখলে নেয়া। বৈধ মুসলিম ও ফিলিস্তিনিদের নিজ ভূমি থেকে তাড়িয়ে দেয়া। দিন দিন বাড়ছে ইয়াহুদিদের এ ষড়যন্ত্র ও হামলা। সম্প্রতি তারা ইসলাম বিরোধী স্লোগান দিয়ে চালাচ্ছে এসব অপকর্ম। ইসরাইলি পুলিশ ইয়াহুদিদের শুক্র ও শনিবার ছাড়া অন্য দিনগুলোতে মাসজিদুল আকসায় আক্রমণ চালানোর ঘৃণ্য অনুমতি দিয়েছে।