ফের উত্তপ্ত কাশ্মীর! গোলাগুলিতে নিহত ২

বুধবার, আগস্ট ২১, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ফের উত্তপ্ত কাশ্মীর উপত্যকা। ৩৭০ ধারা বিলোপের পর কাশ্মীর শান্ত বলেই জানিয়েছিল প্রশাসন। কিন্তু সীমান্তে যে শান্তি দীর্ঘস্থায়ী নয়, তা ফের প্রমাণিত হল বুধবার সকালে।

প্রমাণিত হল সীমান্তকে শান্ত করতে শক্ত হাতে হাল ধরতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকে। এদিন সকালে সেনার গুলিতে খতম হয়েছে এক জঙ্গি। ভারতীয় সেনার সঙ্গে জঙ্গিদের গুলি বিনিময় হয়। তাতেই খতম হয় ওই সন্ত্রাসবাদী। লড়াইয়ে এক পুলিশকর্মীও শহিদ হয়েছেন।

ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার রাতে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ভারতীয় সেনার জওয়ানরা জম্মু ও কাশ্মীরের বারামুল্লা জেলায় তল্লাশি চালাতে শুরু করে। জওয়ানদের এলাকায় ঢুকতে দেখেই গুলি চালায় জঙ্গিরা। দুই পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময় শুরু হয়। তখনই সেনার গুলিতে খতম হয় এক জঙ্গি। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত এক স্পেশ্যাল পুলিশ অফিসার শহিদ হন।

সেনা ও পুলিশ সূত্রে খবর, জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ এবং ভারতীয় জওয়ানরা যৌথভাবে অভিযান চালায়। জঙ্গিদের সঙ্গে জওয়ান ও পুলিশের প্রবল গুলি বিনিময় হয়।

সংসদের বাদল অধিবেশন চলাকালীন কাশ্মীরে বাতিল করা হয় ৩৭০ ধারা। এরপর থেকেই কাশ্মীরে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে জঙ্গিরা। আর এই কাজে তাদের পুরোপুরি মদত দিচ্ছে পাকিস্তান। কয়েকদিন আগে ভারতে অনুপ্রবেশ করতে গিয়ে খতম হয় পাকিস্তানের কয়েকজন সেনা। তাতেও শিক্ষা হয়নি তাদের। ক্রমাগত সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে কাশ্মীরের সীমান্তবর্তী গ্রামগুলিতে গুলি ছুঁড়ছে। সমর বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বহুদিন ধরেই সীমান্তে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করার ফাঁকে ভারতে জঙ্গি ঢোকাচ্ছে পাকিস্তান। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন।

মঙ্গলবারও সকাল এগারোটা নাগাদ জম্মু-কাশ্মীরের পুঞ্চের কৃষ্ণঘাঁটি সেক্টরে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে পাকিস্তান। বিনা প্ররোচনায় গুলি চালাতে শুরু করে পাকিস্তানি সেনা। পালটা জবাব দেয় ভারতীয় সেনা। কয়েকঘণ্টা ধরে দু’পক্ষের মধ্যে চলে গুলি বিনিময়। তাতেই শহিদ হন এক ভারতীয় জওয়ান। শহিদ ওই জওয়ানের নাম রবিরঞ্জন কুমার সিং। তারপর আজকের ঘটনা। বোঝাই যাচ্ছে পাকিস্তানকে ঠেকাতে এবার প্রশাসন শক্ত হাতে হাল না ধরতে চলতেই থাকবে নাশকতা।