নো-ডিল ব্রেক্সিট

খাদ্য, জ্বালানি ও ওষুধ ঘাটতির মুখে পড়বে যুক্তরাজ্য!

সোমবার, আগস্ট ১৯, ২০১৯

রয়টার্স
লন্ডনের পার্লামেন্ট ভবনের বাইরে ব্রেক্সিটবিরোধী এক বিক্ষোভকারী। পুরনো ছবি : রয়টার্স

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে অন্তবর্তীকালীন কোনো চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিটের পথে হাঁটলে খাদ্য, জ্বালানি ও ওষুধ ঘাটতির মুখে পড়তে পারে যুক্তরাজ্য। একটি সরকারি নথি পেয়ে এ আশঙ্কার কথা জানিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে দেশটির প্রভাবশালী গণমাধ্যম সানডে টাইমস। তবে সঙ্গে সঙ্গে তা চ্যালেঞ্জ করেছেন কয়েকজন ব্রিটিশ মন্ত্রী।

নথিতে বলা হয়, মন্ত্রিসভায় বিনাচুক্তিতে (নো-ডিল) ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের পথে যাওয়া হলে বন্দরে জট, গণবিক্ষোভ ও ছড়িয়ে পড়া জনরোষের ফলে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে এসব ঘাটতি দেখা দিতে পারে।

এদিকে যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট ‘নো-ডিল’ প্রস্তুতিবিষয়ক মন্ত্রী মাইকেল গোভ ওই প্রতিবেদনকে চ্যালেঞ্জ করে বলেন, সবচেয়ে বাজে অবস্থা-ই হতে যাচ্ছে, নথিটিতে এমন কিছু নেই। বরং খারাপ পরিস্থিতিতে কী করা যায় তা নিয়ে তিন সপ্তাহ ধরে তার পরিকল্পনা চলছে।

সানডে টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, ট্রাফিক অবস্থা স্বাভাবিক হতে তিন মাস লাগতে পারে। আর এর আগ পর্যন্ত ৮৫ শতাংশ পণ্যবাহী লরি ট্রাক ব্যস্ততার ঘেরাটোপে পড়তে পারে।

তবে ওই নথি নিয়ে মন্তব্য করতে চায়নি প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের দপ্তর। নাজুক পরিস্থিতির মুখে পড়লে কী করতে হবে সে ব্যাপারে যুক্তরাজ্য সরকারের পূর্ণ প্রস্তুতি রয়েছে বলে দাবি করেন মন্ত্রী মাইকেল গোভ।

ওই নথি ফাঁস হওয়ার পেছনে সাবেক একজন মন্ত্রীর হাত রয়েছে বলে দাবি করেছেন ব্রিটিশ সরকারের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা। ওই মন্ত্রী ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে আলোচনায় প্রভাব বিস্তার করেছিলেন বলে জানান এ কর্মকর্তা। তবে মন্ত্রীর নাম বলেননি তিনি।