শিমুলিয়া ঘাটে পারের অপেক্ষায় ৫ শতাধিক গাড়ি

শুক্রবার, আগস্ট ৯, ২০১৯

মুন্সিগঞ্জ: মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে সকাল থেকে গাড়ির চাপ বাড়তে শুরু করেছে। ঈদের ছুটি শুরু হওয়ায় ঘরমুখো মানুষ এ রুটে পদ্মা পাড়ি দিয়ে নিজ নিজ গন্তব্যে যাচ্ছেন। তবে আবহাওয়া স্বাভাবিক থাকায় ফেরি চলাচলে কোনো সমস্যা হচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে বলে জানিয়েছেন বিআইডাব্লিউটিসি’র শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী মহাব্যবস্থাপক মো. নাসির।
তিনি গণমাধ্যমকে জানান, শিমুলিয়া ঘাটে পারের অপেক্ষায় রয়েছে ৫ শতাধিক যাত্রীবাহী গাড়ি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এ গাড়ির চাপ আরো বাড়বে। রাতে ১২টি ফেরি নৌরুটে চলাচল করেছে। আজ সকাল থেকে আবহাওয়া ফেরি চলাচলের জন উপযোগী রয়েছে। এরকম পরিস্থিতি থাকলে ফেরি চলাচলে কোনো সমস্যা থাকবে না ও গাড়ির চাপ থাকলেও কমে আসবে। গেল দু’দিন নদীতে তীব্র ঢেউ ও বৈরী আবহাওয়া থাকায় ফেরি চলাচল ব্যাহত হয়েছিল।
বিআইডব্লিউটিএ-এর শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শক মো. সোলেমান গণমাধ্যমকে জানান, সকাল থেকে লঞ্চঘাট ও সিবোট ঘাটে যাত্রীদের বাড়তি চাপ দেখা গেছে। ঈদ উপলক্ষে রাত ১০টা পর্যন্ত লঞ্চ চলাচল করে থাকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে। লঞ্চ চলাচলে কোনো সমস্যার পোহাতে হচ্ছেনা। ধারণ ক্ষমতার বেশি যাত্রী নিয়ে কোনো ছেড়ে লঞ্চ যাচ্ছে না। এছাড়া, সিবোট ঘাটেও যাত্রীদের বাড়তি উপস্থিতি রয়েছে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এই যাত্রীদের চাপ অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।
মাওয়া ট্রাফিক পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক হেলাল উদ্দিন জানান, শিমুলিয়া ঘাটের পার্কিং ইয়ার্ডে প্রাইভেটকার ও বাস পারের অপেক্ষায় আছে। ভোর থেকেই যাত্রীবাহী গাড়ির সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। এছাড়া ট্রাকের একটি দীর্ঘ সারি ঘাট এলাকায় অবস্থান করছে। তবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যাত্রীবাহী গাড়িকে আগে ফেরিতে উঠতে দেওয়া হচ্ছে। ফেরি চলাচলে বিঘ্ন না ঘটলে গাড়ির চাপ আস্তে আস্তে কমে আসবে বলে জানান তিনি।