শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ মানুষ তৈরি হতে পারে না : যবিপ্রবি উপাচার্য

মঙ্গলবার, জুলাই ৩০, ২০১৯

যবিপ্রবি প্রতিনিধি : একজন ছাত্র শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার মাধ্যমে দক্ষ মানুষ তৈরি হতে পারে না, আনুষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি সাংস্কৃতিক শিক্ষারও প্রয়োজন হয়, আর এভাবেই বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা তৈরি হবে।

একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষই পারে একটি সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে। সাংস্কৃতিমনা লোকই পারে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। রোবটও অনেক কাজ করতে পারে, আমাদেরকে রোবট হলে হবে না, কারন রোবটের কোন সংস্কৃতি নাই।

আজ ২৯ জুলাই শনিবার যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তর আয়োজিত অন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক সপ্তাহ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য আরও বলেন, সংস্কৃতিমনা লোকজনই পারে সমাজকে সামনের দিকে নিয়ে যেতে, প্রযুক্তির সাথে যদি সংস্কৃতি যুক্ত হয় তাহলে আগামী দিনের পৃথিবী অনেক সুন্দর হবে। আমাদের সমাজ থেকে মূল্যবোধ হারিয়ে যাচ্ছে, সবার দায়বদ্ধতা হারিয়ে যাচ্ছে, আর এর থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ হল সুস্থ সংস্কৃতির চর্চা করা। আমরা কখনও আমাদের সংস্কৃতির চর্চা করিনা, তাই সমাজটা অপসংস্কৃতির দিকে ঝুকে যাচ্ছে। রাজনীতির বিষয়ে কঠোর হুশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয়ে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে কোন

কুলাঙ্গারের স্থান হবে না, রাজনীতির নামে আজকাল কুলাঙ্গার তৈরি হচ্ছে যাদেরকে কখনই সহ্য করা হবে না।
সাংস্কৃতিক সপ্তাহের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ফিশারিজ এন্ড মেরিন বায়োসায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. আনিসুর রহমান, সভাপতিত্ব করেন ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মীর মোশাররফ হোসেন।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. নাজমুল হাসান, এগ্রো প্রোডাক্ট প্রসেসিং টেকনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাস, শহীদ মশিয়ুর রহমান হলের প্রভোস্ট সহযোগী অধ্যাপক ড. আমজাদ হোসেন, প্রধান চিকিৎসা কর্মকর্তা ডাঃ দীপক কুমার মণ্ডল সহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক- শিক্ষার্থীবৃন্দ।

তিনদিনব্যাপি চলা এ প্রতিযোগিতায় নাচ, গান, কবিতা আবৃত্তি, বিতর্ক প্রতিযোগিতা সহ বিভিন্ন ইভেন্টে শিক্ষারত্রিরা অংশগ্রহণ করেন, উপাচার্য বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন।