ডেঙ্গু হলে খাবেন ড্রাগন ফ্রুট

মঙ্গলবার, জুলাই ২৩, ২০১৯

স্বাস্থ্য ডেস্ক : আমাদের দেশে অনেকটাই অপিরিচিত ফল ড্রাগন ফ্রুট। ড্রাগনের দাঁতের মত অসংখ্য নরম কাঁটা রয়েছে এই ফলের গায়ে তাই বুঝি এর এমন নাম।

ভিনদেশি এই ফলটি এখন যেকোনো ফলের দোকানেই বিক্রি হচ্ছে খুব। ভিনদেশি ফল হলেও, বাগানের পাশাপাশি ছাদে কিংবা বড় বারান্দাতেও ক্যাকটাস প্রজাতির এই ড্রাগন ফ্রুট গাছ লাগানো যায়।

হালকা মিষ্টি, লাল ও সাদা রঙের এ ফলটি আসলে দক্ষিণ আমেরিকা ও মেক্সিকোতে বেশি পাওয়া যায়। যা পরবর্তীতে ক্যাম্বোডিয়া, থাইল্যান্ড তাইওয়ান, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইনসহ বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পরে।

উপকারিতা

ড্রাগ্রন ফ্রুটে আছে প্রোটিন, আয়রন, কার্যোহাইড্রেট, দ্রবণীয় আঁশ, ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, ভিটামিন-সি ও চিনি। এছাড়াও রয়েছে আরো কিছু উপকারী পুষ্টি গুণ।

ডেঙ্গু রোগীদের জন্য

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ড্রাগন ফ্রুট রক্তে হিমোগ্লোবিন ও প্লেটলেটের সংখ্যা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং ফলের ভিটামিন-সি জ্বরকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে কাজ করে। পাশাপাশি এতে থাকা আয়রন, ফসফরাস, লাইকোপেন, ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের দ্রুত সেরে উঠতে সাহায্য করবে।

ডায়বেটিস কমায়

নিয়মিত অল্প পরিমাণ ড্রাগন ফ্রুট খেলে রক্তে চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রিত থাকবে। এতে করে টাইপ-২ ডায়বেটিস দেখা দেয়ার সম্ভাবনাও কমে যাবে। ২০১৭ সালের একটি গবেষণা থেকে জানা যায়, যারা ড্রাগন ফ্রুট নিয়মিত গ্রহণ করেছেন তাদের রক্তে প্রি-ডায়বেটিক লক্ষণসমূহ তুলনামূলক কম দেখা গেছে যারা গ্রহণ করেননি তাদের চেয়ে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি

এতে আছে ভিটামিন-সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। গবেষণা বলছে, লাল ও সাদা উভয় ড্রাগন ফ্রুটেই রয়েছে পলিফেনল ও ফ্ল্যাভনয়েড, যা ফ্রি রেডিক্যাল থেকে রক্ষা করে।

খাদ্য পরিপাকে সাহায্য করে

ফুড ক্যামিস্ট্রিতে প্রকাশিত একটি গবেষণার বলা হয়েছে, ড্রাগন ফ্রুট পাকস্থলিতে উপকারী ব্যাকটেরিয়া ল্যাকটোব্যাসিলি ও বাইফিডোব্যাকটেরিয়া জন্মাতে সাহায্য করে। এছাড়া এই ফলে থাকা পর্যাপ্ত পরিমাণ আঁশ বাওয়েল মুভমেন্টকে নির্বিঘ্ন রাখতে এবং খাদ্য ভালভাবে পরিপাক হতে কাজ করে।

সুস্থ চোখ

ড্রাগন ফ্রুট সাইটোক্রোম নামক প্রোটিন তৈরি করে। ফুড ক্যাম্রিস্ট্রি জার্নালে প্রকাশিত তথ্য জানাচ্ছে, এতে থাকা বেটা-ক্যারোটিন চোখকে ক্ষতিকর ফ্রি রেডিক্যাল থেকে রক্ষা করে।

হাড় ও দাঁত শক্ত করে

ড্রাগন ফ্রুটে অনেক বেশি পরিমাণ ক্যালসিয়াম রয়েছে। তাই নিয়মিত ড্রাগন ফ্রুট খেলে হাড় ও দাঁত শক্ত ও সুস্থ থাকে।