‘সরকারি কর্মকর্তাদের সরল বিশ্বাসের বড় ভুলও অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না’

বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০১৯

ঢাকা : দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সরল বিশ্বাসে কোনো বড় ভুল করলেও তা অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে না। এ জন্য তাদের গ্রেপ্তার কিংবা শাস্তি হবে না। তবে পেনাল কোড অনুযায়ী সরল বিশ্বাসের বিষয়টি ওই কর্মকর্তা বা কর্মচারীকে প্রমাণ করতে হবে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সামনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন দুদক চেয়ারম্যান।

জেলা প্রশাসক সম্মেলনের পঞ্চম ও শেষ দিনের কর্ম-অধিবেশনে দুদক চেয়ারম্যানসহ কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অংশ নেন। মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনের অধিবেশন থেকে বেরিয়ে দুদক চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। প্রথমে তিনি সাংবাদিকদের কোনো প্রশ্নের জবাব দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

সাংবাদিকদের অনুরোধে একপর্যায়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন সবার জন্যই একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমরা একটি দুর্নীতিমুক্ত, সুখী-সমৃদ্ধশালী দেশ গড়তে চাই। এ জন্য সবাইকেই একযোগে কাজ করতে হবে।’

সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহার নিয়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন ইকবাল মাহমুদ।

এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তারা যদি সরল বিশ্বাসে কোনো ভুল করে ফেলে, এমনটি এটা যদি একটি বড় ভুলও হয়, তাহলেও এটা কোনো অপরাধ নয়। পেনাল কোডে এটাই বলা হয়েছে।

তবে এখানে বিষয়টি দেখতে হবে, সরকারি কর্মকর্তারা যে ভুলটি করেছেন, সেটা সত্যিকার অর্থেই সরল বিশ্বাসে হয়েছে কি না, এখানে অন্য কোনো মোটিভ ছিল কি না। যদি সত্যিকার অর্থেই সরল বিশ্বাসে এটা হয়ে থাকে, তাহলে এটা কোনো অপরাধ নয়।’

ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘আমরা জেলা প্রশাসকদের বলেছি, সুনাগরিক গড়ে তুলতে না পারলে দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়া সম্ভব নয়। এ জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলে জেলা প্রশাসকরা জোরালো ও কার্যকর ভূমিকা পালন করতে পারেন।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘স্থানীয় পর্যায়েও যদি দুর্নীতি দমন কমিশনের কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন, এটা যাতে তারা কমিশনকে অবহিত করেন। এ বিষয়ে আমরা জেলা প্রশাসকদের জানিয়েছি।’