বিএনপির আন্দোলন করার সক্ষমতা নেই: হানিফ

বুধবার, জুলাই ১৭, ২০১৯

ঢাকা : বিএনপির আন্দোলনের হুমকি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেছেন, আন্দোলনের হুমকি আওয়ামী লীগকে দিয়ে কোনো লাভ হবে না, কারণ আওয়ামী লীগের জন্মই হয়েছিল শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে আন্দোলনের মাধ্যমে। এই দলকে আন্দোলনের হুমকি দেওয়া হাস্যকর ছাড়া অন্য কিছু নয়।

বুধবার (১৭ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে স্বপ্ন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে হানিফ এসব কথা বলেন।

হানিফ বলেন, বিএনপি হচ্ছে আপদমস্তক একটি দুর্নীতিগ্রস্ত দল। এই দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে বর্তমানে কারাগারে আছেন এবং তার গুণধর পুত্র তারেক রহমান মানিলন্ডারিং, দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও হত্যাকাণ্ডসহ বিভিন্ন মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে এখন লন্ডনে পলাতক। এদের কোন নৈতিক শক্তি নেই আন্দোলন করার। মুখে বড় কথা বললেও আন্দোলন করার সক্ষমতা দলটির (বিএনপি) কখনও ছিল না।

তারা এখন আন্দোলন করার হুমকি দিচ্ছে, আন্দোলন করে সরকারের পতন ঘটিয়ে ক্ষমতায় আসবে এটা দিবা স্বপ্ন হয়েই থাকবে। আন্দোলন করে তাদের নেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবেন? খালেদা জিয়াকে আন্দোলন করে নয়, আইনের মাধ্যমেই মুক্ত করতে হবে। এর কোন বিকল্প নেই, তবে আরেকটি পথ খোলা আছে। সেটি হচ্ছে- রাষ্ট্রপতির কাছে অপরাধ স্বীকার করে ক্ষমা চাওয়া। তাহলে হয়তো রাষ্ট্রপতি তাকে ক্ষমা করতে পারেন। এর বাইরে আর কোনো পথ আমার জানা নেই।

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশের জনগণ যদি ঐক্যবদ্ধ থাকেন, আর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যদি ঐক্যবদ্ধ থাকেন, তাহলে কোনো অপশক্তিই সফল হতে পারবে না। এই বিশ্বাস আমাদের আছে। বর্তমান আওয়ামী লীগ অনেক সুসংগঠিত ও শক্তিশালী। কোন আন্দোলনই আওয়ামী লীগকে পরাজিত করতে পারবে না বলে সতর্ক করে দেনে।

সভায় সাবকে মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, শেখ হাসিনা কারাগারে থাকাকালীন কখনও কোনো হা-হুতাশ করেননি। সে সময় আমরা যখন দেখা করতে যেতাম, তিনি আমাদের সাহস দিতেন। কারাগারে বসেই আগামী দিনে দেশ পরিচালনার পরিকল্পনা করেছিলেন শেখ হাসিনা। তাই আজ দেশ উন্নতির শিখরে।

তিনি বলেন, দেশে ষড়যন্ত্রকারীরা কিন্তু থেমে নেই। ষড়যন্ত্র আগেও হয়েছিল, এখনও অব্যাহত আছে। বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যা করেছিল, তারাই কিন্তু জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করেছে। আজকে বিএনপি নামের দলটি কাগজের সংগঠনে পরিণত হয়েছে।