মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল

টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কে ৬২ কোটি টাকার প্রকল্প

শুক্রবার, জুলাই ১২, ২০১৯

ঢাকা: মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে স্থাপন হচ্ছে টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক। এর ফলে উচ্চগতির ইন্টারনেট সুবিধার পাশাপাশি নিরবচ্ছিন্ন যোগাযোগ স্থাপন হবে।

এ জন্য ‘চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ে অর্থনৈতিক অঞ্চলে টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপন’ শীর্ষক একটি প্রকল্প হাতে নিচ্ছে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়। এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৬১ কোটি ৯০ লাখ টাকা।

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আগামী সভায় প্রকল্পটি উপস্থাপন করার প্রস্তুতি নিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে ২০২১ সালের মধ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল)।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনা কমিশনের একাধিক কর্মকর্তা জানান, প্রকল্পটির প্রস্তাব পাওয়ার পর গত বছরের ১৯ জুলাই পরিকল্পনা কমিশনে প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটির (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় দেয়া বেশ কিছু সুপারিশ প্রতিপালন করেছে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়।
তারা জানান, মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপন করে দেশি ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের অপরিহার্য টেলিযোগাযোগ সেবা নিশ্চিত করা হবে। প্রকল্পটি গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (আরএডিপি) বরাদ্দহীন অননুমোদিত নতুন প্রকল্প তালিকায় অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এটি প্রধানত মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং ফেনী, কক্সবাজার, কুমিল্লা ও ঢাকার স্থাপনাগুলোতে বাস্তবায়ন করা হবে।

পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য শামীমা নার্গিস একনেকের জন্য তৈরি প্রকল্প সারসংক্ষেপে কমিশনের মতামত দিয়েছেন। সেখানে তিনি উল্লেখ করেন, এটি বাস্তবায়িত হলে মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলের টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপনের মাধ্যমে দেশি ও বিদেশি বিনিয়োগকারীদের নিরবচ্ছিন্ন এবং আধুনিক উচ্চগতির টেলিযোগাযোগ ও আইসিটি সুবিধা নিশ্চিত করা সম্ভব হবে। এ বিবেচনায় প্রস্তাবিত প্রকল্পটি অনুমোদনযোগ্য।

প্রকল্পের প্রস্তাবনায় বলা হয়েছে, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে বিদেশি বিনিয়োগ নিশ্চিত করতে চায় সরকার। এ জন্য বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ চট্টগ্রামের মীরসরাই এবং সংলগ্ন এলাকা নিয়ে প্রায় ৩০ হাজার একর জায়গায় অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের কাজ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। এই অর্থনৈতিক অঞ্চলে পরিকল্পিত শিল্পায়ন ও পরিবেশবান্ধব ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণে শক্তিশালী টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগ পর্যালোচনায় উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্কের প্রাপ্যতা অগ্রাধিকার দিয়ে থাকেন। মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চলে টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক স্থাপন সংক্রান্ত কার্যক্রম গ্রহণের জন্য বেজা থেকে ২০১৭ সালের ২৮ মে চিঠির মাধ্যমে বিটিসিএলকে অনুরোধ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ডাকা ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ ও বিটিসিএল প্রকল্পটির উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) তৈরি করে অনুমোদন প্রক্রিয়াকরণের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে পাঠায়।

প্রকল্পটির আওতায় যেসব কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে সেগুলো হল টেলিফোন ও উচ্চগতির ইন্টারনেট সেবা প্রদানে আধুনিক এক্সচেঞ্জ ও আইপি ইকুইপমেন্ট স্থাপন। এ ছাড়া রিডানডেন্সিসহ উচ্চক্ষমতার অপটিক্যাল ফাইবার ট্রান্সমিশনে লিংক স্থাপন এবং সার্বক্ষণিক সেবা দেয়ার জন্য অফিস ভবনসহ টেলিকম কম্পাউন্ড নির্মাণসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে অর্থবছরভিত্তিক বরাদ্দ চাহিদা ধরা হয়েছিল, সদস্য সমাপ্ত অর্থবছরে ১৯ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এ ছাড়া চলতি অর্থবছর ৩০ কোটি ৮৭ লাখ টাকা এবং ২০২০-২১ অর্থবছরে ১১ কোটি ৫৭ লাখ টাকা। তবে পরিকল্পনা কমিশনের কর্মকর্তারা জানান, যেহেতু প্রকল্পটি প্রক্রিয়াকরণ করতেই গত অর্থবছর শেষ হয়েছে সেহেতু বরাদ্দ চাহিদা অর্থ বাকি অর্থবছরগুলোর সঙ্গে সমন্বয় করতে হবে। প্রক্রিয়াকরণে বিলম্বের কারণ সম্পর্কে তারা জানান, গত বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি প্রকল্পটির উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) পরিকল্পনা কমিশনে আসে। এরপর ১৯ জুলাই অনুষ্ঠিত হয় পিইসি সভা।