থানচিতে নিন্মঅঞ্চল প্লাবিত: সড়ক ও নৌপথ বিছিন্ন

বৃহস্পতিবার, জুলাই ১১, ২০১৯

অনুপম মারমা, থানচি (বান্দরবান) প্রতিনিধি : টানা বৃষ্টি ভারী বর্ষণ শংঙ্খ নদীর পানির বৃদ্ধি ও বিভিন্ন ঝিড়ির ঝর্ণা পানির প্রবাহ বৃদ্ধি কারনে বান্দরবানে থানচি উপজেলা খন্দ খন্দভাবে ৪/৫টি স্থানে নিন্মঅঞ্চল প্লাবিত ।

থানচি উপজেলা সাথে অন্যান্য জেলা উপজেলা সড়কে খন্দ খন্দভাবে ৭/৮টি স্থানে সড়কে পাহাড় ধসে সড়ক ও নৌপথ বিছিন্ন থাকায় স্কুল কলেজ সকল বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের না আসার বন্দ করে দিয়েছে ।

উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদের যৌথভাবে থানচি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও বলিবাজার উচ্চ বিদ্যালয় ২টি আশ্রয় কেন্দ্রে খোলা রাখা হয়েছে । ঔ সব আশ্রয় কেন্দ্রে চাল, ডাল, চিনি, যাবতীয় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রয়েছে । তবে এই রিপোর্ট লেখার পর্যন্ত হতাহত ঘটনা ঘটেনি ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিগত শনিবার হতে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত টানা এক সপ্তাহ ব্যাপী টানা ভারী বৃষ্টি,প্রবল বর্ষনে উপজেলা থানচি বাজারের শংঙ্খ নদীর আশে পাশে বসবাসরত প্রায় ৫শত পরিবার এবং বলিপাড়া ইউনিয়নের হিন্দু পাড়া বাগান পাড়া হাইল মারা পাড়াসহ কয়েকটি পাড়ায় নিন্মঅঞ্চল প্লাবিত ।

বন্যা দুর্ঘটদের আশ্রয় কেন্দ্র নেয়া হয়েছে । এদিকে থানচি আলিকদম সড়কে পাহাড় ধসে সড়কের কয়েকটি স্থানে ব্লক হয়েগেচ্ছে। বান্দরবান থানচি সড়কে জীবন নগর নামক স্থান হতে বলিপাড়া বাজার পর্যন্ত প্রায় ৯ কিলোমিটার দুরত্বে কয়েকটি স্থানে পাহাড় ধসে সড়কের ব্লক হয়ে যাওয়ার জেলা সদর সাথে সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা বিছিন্ন রয়েছে ।

নিম্ন অঞ্চল প্লাবিত ও বন্যা কবলিত এবং পাহাড় ধসে সড়কে পরিদর্শণ ও সর্বক্ষনিকভাবে দুর্ঘটনা কবলিত পরিবার ও মানুষের সাথে যোগাযোগ রাখছেন উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আরিফুল হক মৃদুল, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাংসার ম্রো, থানচি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ, বলিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াঅং মারমা এবং থানচি জামের মসজিদের ইমাম মোল্লানা আনিস হক মোবারক সকাল থেকে মসজিদের মাইকিং করছেন প্লাবিত স্থান থেকে নিরাপথ স্থানে আশ্রয় নিতে ।

যোগাযোগ করা হলে সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাংসার ম্রো বলেন, আমার ইউনিয়নের শংঙ্ক নদীর তীর বর্তী বসবাসরত ৫ শতাধিক পরিবার বন্যা কবলিত হয়েছে ।

পরিবারের স্বজনদের আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের আমিসহ সদস্যদে সমন্বয়ে ২টি টিম আশ্রয় কেন্দ্র নিয়ে নিরাপথ স্থানে রাখা হয়েছে । তিনি আরো বলেন, থানচি সদর হতে হাসপাতালের যাওয়ার পথে একটি কালভার্ট সেতু ডুবিয়ে গেচ্ছে এখন নৌকা দিয়েছি ।

যোগাযোগ করা হলে উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়াইহ্লামং মারমা ও নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আরিফুল হক মৃদুল স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, সকাল ৬টা হতে বান্দরবান থেকে থানচি উপজেলা উদ্যেশে রওনা দিয়েছি জীবন নগর নামক স্থানে পৌছলে সড়কে পাহাড় ধসে দুইজনে গাড়ি রেখে দুই ঘন্টা পাঁয়ে হেঁটে ভরট পাড়া নামক স্থানে পৌছলে খন্দ খন্দ ভাবে ৭/৮টি স্থানে পাহাড় ধসে সড়কে মাটি ব্লক করে ফেরার কারনে পূনরায় ফিরে যাচ্ছি । তিনি আরো বলেন থানচি উপজেলা সদরে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ তারিকুল রহমান ও তার কার্যালয়ের সকল কর্মচারীদের নির্দেশ দিয়েছি আশ্রয় কেন্দ্র গুলিতে শুকনো খাওয়ার ও বিশুদ্ধ পানিসহ খাদ্য সামগ্রী দিয়ে যাওয়ার কথা ।

যোগাযোগ করা হলে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ তারিকুল রহমান বলেন, বলিপাড়া ইউনিয়নে উচ্চ বিদ্যালয়ের আশ্রয় নেয়ার শতাধিক দুর্ঘটা পরিবারের মাঝে মুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানিসহ সকল প্রকার খাদ্য সামগ্রী বিতরনে ব্যস্ত কথা জানাইলেন ।