বিএনপি সৃষ্টি না হলে ফ্যাসিবাদ আরও নির্মমভাবে প্রতিষ্ঠিত হ‌তো: দুদু

বুধবার, জুলাই ১০, ২০১৯

ঢাকা: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কৃষক দলের আহ্বায়ক শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, ‘শহীদ জিয়াউর রহমান ও মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া এ দেশে বিএনপির প্রতিষ্ঠা করার কারিগর। বিএনপি এ দেশে প্রতিষ্ঠিত না হলে ফ্যাসিবাদ আরও নির্মম, আরো গাঢ়ভাবে এ দেশে প্রতিষ্ঠা লাভ কর‌তো।’

বুধবার (১০ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া স্মৃতি জাতীয় কমিটির উদ্যোগে জাতীয়তাবাদী প্রগতিশীল গণতন্ত্রের প্রবক্তা মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়ার ৯৫তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মুক্ত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

শামসুজ্জামান দুদু ব‌লেন, ‘আমার দৃষ্টিতে রাজনীতি হচ্ছে সৃজনশীলতার সর্বোচ্চ ধাপ। সেই সৃজনশীলতার অন্যতম কারিগর ছিলেন মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া। তার জীবনের অনন্য কীর্তি হচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল। তার আগেও রাজনীতিতে তার কৃতিত্ব ছিল। তিনি মাওলানা ভাসানীর সাথে ন্যাপ করেছেন। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন। স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে গণতন্ত্রের কথা বলার জন্য তিনি কারাবরণ করেছেন এবং শেখ মুজিবুর রহমান মৃত্যুবরণ করার পরে গণতন্ত্রকে ক্যান্টনমেন্ট থেকে বাইরে আনার উদ্যোগ নিয়েছেন এবং একজন জেনারেলকে সঠিকভাবে গণতন্ত্রের মানুষ হিসেবে, একজন রাষ্ট্রপতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আর সেই রাষ্ট্রপতি হচ্ছেন শহিদ জিয়াউর রহমান।

ছাত্রদ‌লের সা‌বেক এই সভাপ‌তি ব‌লেন, ‘দেশে দুটি কারণে গণতন্ত্র কলুষিত হয়েছে- একটি হচ্ছে শহীদ জিয়াউর রহমানের শাহাদত বরণ এবং আরেকটি হচ্ছে মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া অকালমৃত্যু। এই দুটি ঘটনায় বাংলাদেশ আজকে ফ্যাসিবাদ সৃষ্টির ভূমিকা রেখেছে। শহীদ জিয়াউর রহমান ও মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া যদি আর দশটি বছর বাঁচতেন তাহলে রাজনীতি এবং গণতন্ত্র আজকের যে পরিস্থিতি এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হতো না।’

‌তি‌নি ব‌লেন, ‘মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া তার দিব্যদৃষ্টিতে দেখেছিলেন এদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে হলে শহীদ জিয়াউর রহমানকে প্রয়োজন তার প্রতিজ্ঞা কর্মর কারণে এদেশে যারা স্বৈরাচার প্রতিষ্ঠা করেছে তারা এখনো আতঙ্কিত।’

‌বিএন‌পির এই নেতা ব‌লেন, ‘দেশটা বে-লাইনে চলে গেছে। সেই বে-লাইনটাকে লাইনে আনতে হলে মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়ার মতো চিন্তা, শক্তি এবং সাহসিকতার সাথে এ পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে হবে ‘

‌তি‌নি ব‌লেন, ‘কাকে দিয়ে, কখন , কিভাবে আন্দোলন সৃষ্টি হবে এই সরকারের পতন হবে এটা হয়তো আমি সঠিকভাবে বলতে পারব না। তবে এর থেকে মুক্তি পেতে হলে মাওলানা ভাসানী, মশিয়ুর রহমান যাদু মিয়া, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, বেগম খালেদা জিয়ার দিকে তাকাতে হবে। এ ছাড়া উট পাখির মত যদি বালুর মধ্যে মাথা গুঁজে দিয়ে হাজার চেষ্টা করি তাহলে মুক্তি পাবো না।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি শামসুল হকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় ‌বিএন‌পির মহাস‌চিব মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, গণস্বাস্থ্য কে‌ন্দ্রের প্র‌কিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, মশিউর রহমান যাদু মিয়ার মেয়ে রিটা রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।