সরকারের কারণেই খালেদা জিয়ার জামিন হচ্ছে না : রিজভী

বুধবার, জুন ১৯, ২০১৯

ঢাকা : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়ার নামে কথিত মানহানির অভিযোগে দুই মামলা করা হয়েছে তা সম্পূর্ণরুপে অসত্য এবং মামলারই যোগ্য নয়। তা কেবল প্রতিহিংসামূলক।

তিনি বলেন, তার প্রমাণ হলো-গতকাল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে আদালত জামিন দিলে সেক্ষেত্রে সরকার কোন হস্তক্ষেপ করবে না’

কিছুদিন আগে লন্ডন সফরকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া বক্তব্য আর ওবায়দুল কাদেরের এই কথায় বুঝা যায়, জামিন যোগ্য হলেও সরকারের কারণেই খালেদা জিয়ার জামিন হচ্ছে না। অর্থাৎ সরকার যদি খালেদা জিয়ার মুক্তির প্রশ্নে কোন হস্তক্ষেপ না করে, তাহলে খালেদা জিয়ার জামিন হবে এবং তিনি মুক্তি পাবেন।

বুধবার (১৯ জুন) রাজধানীর নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, আইনের শাসন ও স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা থাকলে বেগম জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দেয়া যেতো না। আমরা আশা করবো উচ্চতর আদালত সকল চাপকে উপেক্ষা করে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করবেন এবং জনগণের নেত্রী জনগণের মাঝে ফিরে আসবেন ইনশাআল্লাহ। আমরা আরও আশা করবো দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে সরকার আর কোন কারসাজি করবে না, বাধা দিবে না; বলেন রিজভী।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, দেশ আজ মগ দস্যু ও ঠগীদের অভয়ারণ্য। মানুষের জীবন-যাপন ও বেঁচে থাকা নির্ভর করছে ঠগীদের ওপর। যেকোন মূহুর্তে যেকোন মানুষ অথবা যেকোন পরিবারের যেকোন সদস্য গুম হয়ে যেতে পারে ক্ষমতাসংশ্লিষ্ট কোন ব্যক্তির সাথে যদি তার ন্যুনতম মনোমালিন্য হয়। দেশে এখন কন্ট্রাক্ট গুম চলছে। প্রভাবশালীরা তাদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীতে যারা গুমের দায়িত্বে আছে তাদের সাথে কন্ট্রাক্ট করে প্রতিপক্ষকে অদৃশ্য করাচ্ছে। এমনিতেই দেশব্যাপী গুম হওয়া পরিবারের হাহাকারে বাতাস ক্রমশ ভারী হয়ে উঠেছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, অধ্যাপক শাহিদা রফিক, সহ-সাংগঠনিক আব্দুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।