কুমিল্লায় সিনিয়র জুনিয়র দ্বন্দ্বে কলেজ ছাত্রকে চুরিকাঘাতে হত্যা চেষ্টা

শনিবার, জুন ১৫, ২০১৯

বারী উদ্দিন আহমেদ বাবর, কুমিল্লা প্রতিনিধি : কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে সিনিয়র জুনিয়র দ্বন্দ্বে কথা কাটাকাটির জের ধরে কলেজ ছাত্রকে চুরিকাঘাত করে হত্যা চেষ্টা করা হয়েছে।

এ ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য প্রাণনাশের হুমকি দেয়ার ব্যাপারে ওই শিক্ষার্থীর বাবা মো. আইয়ুব আলী গত বৃহষ্পতিবার নাঙ্গলকোট থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) দায়ের করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ এপ্রিল উপজেলার বক্সগঞ্জ ইউনিয়নের বাগরা গ্রামের মো. আইয়ুব আলীর ছেলে ও ঢালুয়া হোমনাবাদ আদর্শ কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থী মো. ইমরান হোসেনের সাথে একই ইউনিয়নের আলীয়ারা গ্রামের জাফর আহম্মদের ছেলে মো. রবিনের সিনিয়র-জুনিয়র নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়।

পরে ওই দিন সন্ধ্যায় আলিয়ারা গ্রামের দাস পুকুর পাড়ে আনোয়ার হোসেনের দোকানের সামনে একা পেয়ে ইমরানকে বখাটে রবিন ও তার চাচাতো ভাই আলাউদ্দিন মেম্বারের ছেলে মো. রাহিম মিলে নাভীর উপরে চুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

তাকে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ ঘটনায় ইমরানের পিতা মো. আইয়ুব আলী বাদী হয়ে গত ২৮ এপ্রিল রবিন ও রাহিমকে আসামী করে নাঙ্গলকোট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে আসামীদ্বয় কুমিল্লা কারাগারে আটক রয়েছে।

জানতে চাইলে মামলার বাদী মো. আইয়ুব আলী বলেন, মামলার আসামীদ্বয় বর্তমানে কারাগারে আটক থাকলেও তাদের স্বজনরা মামলা তুলে নেয়ার জন্য অব্যাহত চাপ সৃষ্টি করে আসছে। এমনকি আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।

আসামীরা জামিনে এলে আমার ছেলের উপর হামলা চালিয়ে হত্যা করতে পারে বলেও তিনি আশঙ্কা করছেন। এসব হুমকির ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) দায়ের করেছেন বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম পিপিএম বলেন, কলেজ ছাত্রকে চুরিকাঘাত করার ঘটনায় তাঁর পিতা মো. আইয়ুব আলী বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদ্বয় বর্তমানে কুমিল্লা কারাগারে রয়েছে। বাদীকে হুমকি দমকি দেয়ার সত্যতা মিললে ব্যবস্থা নেয়া হবে।