৪ মাসের মাথায় বদলি চট্টগ্রাম কাস্টমসের কমিশনার

শুক্রবার, মে ৩১, ২০১৯

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে যোগ দেয়ার মাত্র ৪ মাসের মাথায় কমিশনার কাজী মোস্তাফিজুর রহমানকে বদলি করা হয়েছে। নিয়োগের পর অনিয়ম ও দুর্নীতি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হওয়ায় তাকে বদলি করা হয়।

সোমবার (২৭ মে) রাতে তার বদলি অর্ডার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) থেকে ইস্যু করা হয়। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কাজী মোস্তাফিজুর রহমানকে কাস্টমসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা থেকে সরিয়ে ঢাকা কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট (আপীল) কমিশনার বিভাগে বদলি করা হয়েছে। আর তার জায়গায় মোহাম্মদ ফখরুল আলমকে নতুন নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধে চলতি বছরের ২১ জানুয়ারি চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসে নতুন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয় কাজী মোস্তাফিজুর রহমানকে। কিন্তু গত ৩ মাসে অনিয়ম বন্ধে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হওয়ায় তাকে বদলি করা হয়।

সূত্র জানায়, বিমানবন্দরে কার্গো ফ্লাইটে সিএন্ডএফ এজেন্টের দৌরাত্ব, ঘুষের বিনিময়ে কাস্টমস কর্মকর্তাদের যাচাই-বাছাই না করে বিল দেয়াসহ চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে ওঠেছে। এসব দুর্নীতি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে না পারায় মূলত তাকে বদলি করা হয়।

এছাড়া শাহ আমানত বিমানবন্দরে কাস্টমস কর্মকর্তা ও সিএন্ডএফ সিন্ডিকেট মিলে পণ্য যাচাই ছাড়া ছেড়ে দেয়ার বিষয়টি সরকারের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরামে চলে যায়। এর আগে, কয়েকশ কন্টেইনার গায়েবের বিষয়ে কমিশনার হিসেবে তিনি উল্লেখযোগ্য কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেননি। যার কারণে কাস্টমসের গুরুত্বপূর্ণ এই জায়গা থেকে তাকে সরিয়ে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট (আপীল) কমিশনার, ঢাকা-২ এ বদলি করা হয়। আর তার জায়গায় মোহাম্মদ ফখরুল আলমকে নিয়োগ দেয়া হয়।