বিরোধী দলের মর্যাদাও হারাল কংগ্রেস

শনিবার, মে ২৫, ২০১৯

ভারত ডেস্ক: ভারতের লোকসভা নির্বাচনে এবার যেন ‘মোদী-ঝড়’ বয়ে গেছে। সেই ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়েছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসসহ অনেক রাজনৈতিক দলের শক্ত ঘাঁটি। ৫৪৩ আসনের লোকসভায় ভোট হয়েছে ৫৪২টিতে। ফলাফলে দেখা গেছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেয়েছে ৩৪৯টি আসন। সরকার গঠনের জন্য যেখানে প্রয়োজন ২৭২টি আসন। সেখানে বিজেপি একাই পেয়েছে ২৯৮টি আসন।

গতবার পেয়েছিলো ২৮২টি আসন। বিজেপির এই বিপুল বিক্রমে জয়ে একদিকে যেমন নরেন্দ্র মোদী ফের ভারতের ক্ষমতায় বসতে চলেছেন, অন্যদিকে মুখ লুকানোর অবস্থা হয়েছে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর। নির্বাচনে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন জোট ইউপিএ পেয়েছে ৯৩টি আসন। আর অন্যান্য দল পেয়েছে ১০০টি।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ফল প্রকাশ শুরু হওয়ার পর থেকে কংগ্রসের এই ভরাডুবির পরেই দলীয় সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী।

এবারের লোকসভা ভোটের ফলাফলের হিসাব অনুযায়ী ভারতের সংসদে বিরোধী দলের তকমা খোয়াতে হচ্ছে কংগ্রেসের। সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণে আরো একবার ব্যর্থ হলো কংগ্রেস। ২০১৪ সালে কংগ্রেস পেয়েছিল মাত্র ৪৪টি আসন। যার ফলে গত লোকসভাতে সংসদের নিয়ম অনুযায়ী বিরোধী দলের তকমা থেকে বঞ্চিত হয়েছিল কংগ্রেস।

কারণ, ভারতের মোট ৫৪৩টি লোকসভা আসনের মধ্যে বিরোধী দলের তকমা পেতে গেলে অন্তত ১০ শতাংশ আসনে জয়ী হতে হয়। যেখানে ২০১৪ সালে কংগ্রেস পেয়েছিল মাত্র ৪৪টি আসন। আর এবার কংগ্রেস ৪৪টি আসনের গণ্ডি পার হলেও মাত্র ৫২টি আসনে এসে আটকে গেছে তারা। অথচ লোকসভায় বিরোধী রাজনৈতিক দল হতে গেলে প্রয়োজন অন্তত ৫৫টি আসন। ফলে এবারও সংসদে বিরোধী দলের মর্যাদা ধরে রাখতে ব্যর্থ হলো কংগ্রেস।