ভারতের নির্বাচন: একবার ছাড়া সব বুথ ফেরত জরিপই ছিল ভুল

মঙ্গলবার, মে ২১, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতের লোকসভা নির্বাচনের শেষ ধাপের ভোট শেষ হলো শনিবার। এই নির্বাচনে জয়ী হয়ে পরবর্তী সরকার কারা গঠন করতে যাচ্ছে তা নিয়ে এর মধ্যেই বুথ ফেরত জরিপগুলো বিশ্লেষণ শুরু করে দিয়েছে।
যদি বুথ ফেরত জরিপের কথাই বিশ্বাস করা হয় তবে সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে নরেন্দ্র মোদিই পরবর্তী সরকার গঠন করতে যাচ্ছেন। এ নিয়ে কোন সন্দেহ নেই। কারণ বিভিন্ন জরিপের ফলাফলে এখন পর্যন্ত এগিয়ে আছে বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট।
তবে ভারতের বিগত বছরগুলোতে নির্বাচনের পর জরিপের যেসব ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে বাস্তবের সঙ্গে তার তেমন মিল পাওয়া যায়নি।
১৯৯৬ সাল থেকে বুথ ফেরত জরিপ পুরোপুরি ভুল তথ্য দিয়েছে। তবে ১৯৯৮ সালেই শুধু এর ব্যতিক্রম ঘটেছে। সে সময় বাস্তব ফলাফলের সঙ্গে বুথ ফেরত জরিপের ফলাফলের অনেকটা মিল ছিল।
এর আগে ২০১৪ সালে প্রবল মোদি-ঝড়ে যে পরিমাণ ভোট পড়েছিল এবারও প্রায় একই হারে ভোট পড়েছে। এবার অবশ্য নারী ও প্রথমবারের ভোটারদের সিংহভাগ সমর্থন বিজেপির দিকেই যাবে। তবে বিজেপির ফল খুব খারাপ হলেও ২২০টির নীচে যাবে না বলে ধারণা করা হচ্ছে।
২০১৪ সালে ৩৩৬টি আসনে জয়লাভ করেছিল বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। সে সময় ট্যুডেজ চানক্য ছাড়া আর কোন বুথ ফেরত জরিপই এটা আশা করেনি যে, এনডিএ জোট তিনশোর বেশি আসনে জয়লাভ করতে পারবে।
সে সময় চানক্যর বুথ ফেরত জরিপ অনুযায়ী, এনডিএর ৩৪০ আসন এবং বিজেপিকে ২৯১ আসনে জয়ের আভাস দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তখন ২৮২ টি আসনে জয়ী হয়েছিল বিজেপি।
তবে চানক্য ছাড়া অন্যান্য বুথ ফেরত জরিপগুলো ভোটারের মনোভাব বুঝতে ব্যর্থ হয়েছিল এবং তাদের ফলাফলের সঙ্গে বাস্তবের ফলাফলের মিল ছিল না। সে সময় এবিপি-নিয়েলসনের জরিপ অনুযায়ী, এনডিএর আসন ধরা হয়েছিল ২৮১টি এবং টাইমস নাউয়ের জরিপ অনুযায়ী এনডিএর সম্ভাব্য আসন ধরা হয়েছিল ২৪৯টি।

অপরদিকে, সিএনএন-আইবিএন-সিএসডিএস লোকনীতির জরিপ অনুযায়ী, এনডিএর আসন সংখ্যা ২৭২ থেকে ২৮০য়ের মধ্যে হবে বলে আভাস দেয়া হয়েছিল। অন্যদের মতোই হেডলাইনস ট্যুডে এবং ইন্ডিয়া টিভি-সি যথাক্রমে এনডিএ ২৬১ থেকে ২৮৩ এবং ২৮৯টি আসন পেতে পারে বলে আভাস দিয়েছিল।
২০০৯ সালে বুথ ফেরত জরিপগুলো আবারও ব্যর্থ হয়েছিল। সে সময় কংগ্রেস নেতৃধানী ইউনাইটেড প্রোগ্রেসিভ অ্যালায়েন্স (ইউপিএ) ২৬২টি আসনে জয়ী হয়েছিল যা কোন জরিপের তথ্যের সঙ্গে মেলেনি। সে সময় কোন বুথ ফেরত জরিপের ভবিষ্যতবাণীর সঙ্গে বাস্তবের ফলাফলে মিল পাওয়া যায়নি।
২০০৪ সালের ভোটে অটলবিহারী বাজপেয়ীর সরকার গড়তে না পারাটাও বুথ ফেরত জরিপকে ভুল প্রমাণ করেছে। সে সময় ‘ইন্ডিয়া শাইনিং’-এর প্রচারের হাওয়ায় বাজপেয়ীর ফিরে আসা নিশ্চিত বলেই ভেবেছিলেন সমীক্ষাকারীরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত দেখা গেল বাস্তবের ফলাফল একেবারেই ভিন্ন।
ওই বছর সব জরিপে বিজেপিকে এগিয়ে রাখা হলেও শেষ পর্যন্ত সব সমীক্ষা মিথ্যা প্রমাণিত হয় চূড়ান্ত ফলাফলে। এতে দেশটির একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসেবে লোকসভায় জয়ী হয়ে সরকার গঠন করে কংগ্রেস।

১৯৯৮ সালে ভারতের শীর্ষ নির্বাচনী জরিপ ইন্ডিয়া ট্যুডে, সিএসডিএস, ডিআরএস, আউটলুক-এসি নিয়েলসেন এবং ফ্রন্টলাইন সিএমএস-এর জরিপ অনুযায়ী, এনডিএর আসন ২১৪ থেকে ২৪৯ হওয়ার কথা বলা হয়েছিল। শেষপর্যন্ত ২৫২ আসনে জয়ী হয়েছিল এনডিএ। গত কয়েক বছরের নির্বাচনের ফলাফল থেকে এটা পরিস্কার যে, বুথ ফেরত জরিপ ফলাফলের সঠিক আভাস দিতে ব্যর্থ হয়েছে।