কেরানীগঞ্জে আদালত স্থাপন সম্পুর্ন অসাংবিধানিক : মওদুদ

মঙ্গলবার, মে ২১, ২০১৯

ঢাকা : কেরানীগঞ্জে আদালত স্থাপন সম্পুর্ন অসাংবিধানিক এবং এজন্য উচ্চ আদালতে চ্যালেঞ্জ করবে বিএনপি বলে জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মঙ্গলবার (২১ মে) দুপুর বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, সু-চিকিতসা, নি:শর্ত মুক্তি ও গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠার দাবিতে এক মানবন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।

মানব্বন্ধনের আয়োজন করে বাংলাদেশ সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ (বিএসপিপি)।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে আইন অনুযায়ী যত টুকু করা দরকার আমরা করছি। কিন্তু সরকারের কুট কৌশলের কারণে আমরা সফল হতে পারছি না। কিন্তু তার পরেও আমাদের এই আইনী প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে হবে। তার সাথে সাথে আমাদের আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে হবে। কারণ শেষ পর্যন্ত আন্দোলন ছাড়া বেগম জিয়ার মুক্তি অর্জন করা সম্ভবপর হবে না। এটা আমরা বুঝি সবাই।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রথমে চকবাজারের পরিত্যাক্ত ভবনে তাকে (খালেদা জিয়াকে) রেখেছিলেন। সেখানে কোনো ধরণের সুযোগ সুবিধা ছিল না। একটা নির্জন কারাগারে বেগম জিয়া একাকী জীবনযাপন করেছেন। তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তার এই অসুস্থতার জন্য এই সরকারই দায়ি করি। এখন নতুন করে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। যে খালেদা জিয়াকে হাসপাতাল থেকে কেরানীগঞ্জের কারাগারে নিয়ে যাওয়া হবে। আমরা সেখানে গিয়েছিলাম, কেরানীগঞ্জে একটা উপজেলা। সেখানে কোনো ধরনের সুযোগ সুবিধা নাই। ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য আদালতে যে পরিবেশ থাকার প্রয়োজন সে ধরণের কোনো পরিবেশ ওখানে নাই।

তিনি আরও বলেন, ‘ কেরানীগঞ্জে আদালত স্থাপন সম্পুর্ন সংবিধান পরিপন্থী। সংবিধানে একজন নাগরিককে সংবিধানে যে মৌলিক অধিকার দেওয়া হয়েছে সেই অধিকার লঙ্ঘন করা হয়েছে। এজন্য আমরা খুব শীঘ্রই কোর্টে কেরানীগঞ্জে আদালত স্থাপন নিয়ে চ্যালেঞ্জ করবো। এবং এটা আমরা করতেই থাকবো। কারণ আমাদের অন্য কোনো উপয়া নাই। আইন বলে যেখানে ঘটনা ঘটে সেখানেই বিচার করতে হবে। কিন্তু সেখানে না করে কেরানীগঞ্জের করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।’

মানব্বন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাড. খন্দকার মাহবুব হোসেন, নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।