সরকার কৃষককে সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি করে ফেলেছে: আ স ম রব

শনিবার, মে ১৮, ২০১৯

ঢাকা : জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, সরকার এপ্রিল মাসে ধান না কিনে কৃষককে মধ্যস্থতাকরীদের কাছে জিম্মি করে ফেলেছে। কৃষকরা উৎপাদন বন্ধ করে দিলে উন্নয়নের রোল মডেল খুঁজেও পাওয়া যাবে না। তিনি বলেন, কৃষক পাকা ধান ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে এর পরিণতি ভয়াবহ।

ধানের ন্যয্য মূল্য থেকে কৃষকদের বঞ্চিত করার প্রতিবাদে শনিবার জাতীয় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জেএসডি আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে রব এসব কথা বলেন।

জেএসডি সহ সভাপতি মিসেস তানিয়া রব এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মোঃ সিরাজ মিয়া, শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, কামাল উদ্দিন পাটোয়ারী, এ্যাড. সৈয়দ বেলায়েত হোসেন বেলাল, মোশারফ হোসেন, আবদুর রাজ্জাক রাজা, আবদুল্লাহ আল তারেক, এ্যাড. সৈয়দ ফাতেমা হেনা, তৌফিক উজ জামান পীরাচা প্রমুখ।

রব আরো বলেন, ধানের ন্যয্য মূল্য না থাকায় টাঙ্গাইলের কালিহাতি, জয়পুরহাটসহ বিভিন্ন স্থানে কৃষক পাকা ধান ক্ষেতে আগুন দিচ্ছে এর পরিনতি ভয়াবহ। উৎপাদন খরচ থেকে ৩০০ টাকা কমে প্রতিমন ধান বিক্রি করতে হচ্ছে।

পুঁজিপতিরা ব্যাপক ঋণ মওকুফ পাচ্ছে, হাজার হাজার কোটি টাকা লুট হচ্ছে। মেগা প্রকল্পের নামে অপচয় হচ্ছে অথচ ১৭ কোটি মানুষের খাদ্যের যোগানদাতা কৃষকদের ভর্তুকি দেয়া হচ্ছে না। কৃষকরাই বাংলাদেশের আত্মা, দেশের প্রাণ। কৃষকদের রক্ষা না করলে বাংলাদেশে অভিশাপ নেমে আসবে। কৃষকরা উৎপাদন বন্ধ করে দিলে দেশে দুর্ভিক্ষ নেমে আসবে, ১৭ কোটি মানুষ না খেয়ে মারা যাবে।

রব বলেন, পৃথিবীর সকল দেশে কৃষকরা উৎপাদন করে লাভ করে, আর আমাদের দেশের কৃষকরা লস করে। সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদ কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যয্য মুল্য নিশ্চিত করার পক্ষে কথা বলছে এজন্য তাদের ধন্যবাদ- অপর দিকে ধান ক্ষেতে আগুন দেয়াকে সরকার পরিকল্পিত বলছে-এটা নিন্দনীয়।

একদিকে চাল রফতানি করা অপর দিকে আমদানি করার এ ভানুমতির খেল বন্ধ করতে হবে। মধ্যস্থতাকারী সুবিধাভোগীদের কাছ থেকে ধান না কিনে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকেই ধান ক্রয় করতে হবে। মধ্যস্বত্বভোগী সিন্ডিকেটের দৌরাত্ম্য বন্ধ করতে হবে, এদেরকে বিচারের আওতায় আনতে হবে।

রব পাটকল শ্রমিকদের ৯ দফা দাবি, মজুরি কমিশন ঘোষণা, গার্মেন্টস শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার আহবান জানান। তিনি জাতীয় সংসদ, জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদসহ সর্বস্তরে শ্রমজীবী-কর্মজীবী- পেশাজীবীদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করাসহ এই রাষ্ট্রব্যবস্থা ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে নতুন রাষ্ট্রব্যবস্থা প্রবর্তনের আন্দোলন-সংগ্রাম গড়ে তোলার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহবান জানান।