ঝড় ও বজ্রপাতে রাজধানীসহ সারা দেশে নিহত ১৪

শনিবার, মে ১৮, ২০১৯

ঢাকা: ঝড় ও বজ্রপাতে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ১৩ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানীতে ৪ জন, নওগাঁ ৩, চাপাইনবাবগঞ্জে ২ জন, কিশোরগঞ্জে ১, পাবনায় ১, রাজশাহীতে ১, টাঙ্গাইলে ১ ও বগুড়ায় একজনের প্রাণহানি হয়েছে। আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক।

শুক্রবার (১৭ মে) সন্ধ্যায় রাজধানী এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে বয়ে যায় প্রচণ্ড ঝড়। এসময় কোথাও কোথাও বজ্রপাতও হয়েছে। ঢাকায় ঝড়ের সঙ্গে বৃষ্টিও ছিল। আকস্মিক এই ঝড়ে শতাধিক গাছপালা উপড়ে গেছে। বিধ্বস্ত হয়েছে বহু ঘরবাড়ি। ঝড়ো হাওয়ায় মাওয়া-কাঁঠালবাড়ী রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। ঝড়ের তাণ্ডবে অভ্যন্তরীণ রুটের বিমান চলাচলও বিঘ্নিত হয়। দুটি বিমান অন্যত্র জরুরি অবতরণ করতে বাধ্য হয়।

ইফতারের পর জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে চলছিলো মাগরিবের নামাজ। হঠাৎ ঝড়ে মসজিদের দক্ষিণ গেটে অস্থায়ীভাবে নির্মিত বাঁশের ছাউনি ভেঙে পড়ে। এতে আহত হন প্রায় ২৫ জন। তাদের নেয়া হয় ঢাকা মেডিকেলে। সেখানে মারা যান শফিকুল ইসলাম (৪০) নামে একজন।

বায়তুল মোকাররম মসজিদে ঝড়ে আহতরা হলেন- রকিব হাসান (২২), হেলাল উদ্দিন (৪০), সাকিব (২২), মনিরুজ্জামান (৩৫), শফিকুল ইসলাম (৩৫), আবদুর রহমান (২০), মনিরুল ইসলাম (৩২), রুবেল হোসেন (২৯), তারেক (৩৫), আবদুল্লাহ আল মাসুদ (২১), শরিফুল ইসলাম (৩০), শফিকুল ইসলাম (১৯), আল আমিন (২০), সোহাগ (২৪), আওয়াল (৩০), জানে আলম (২২), আমানুল্লাহ আমান (২৫০) ও আফজাল হোসেন (৫৮)। বাকিদের নাম জানা যায়নি।

রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় একটি ভবনের পার্কিংয়ের দেয়াল ধসে তিনজন নিহত হন। নিহতদের মধ্যে দুইজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- বুলবুল বিশ্বাস (২৮) ও তপন (২৭)। এছাড়া মিরপুরের মনিপুরে ঝড়ের সময় মাথায় ইট পড়ে ৬ বছরের শিশু জিহাদ আহত হয়।

ঝড়ের সময় আম কুড়াতে গিয়ে গাছচাপায় পাবনার চাটমোহরে গৃহবধূ মার্জিনা খাতুন (২৩) এবং মাথায় ইট পড়ে রাজশাহীর বানেশ্বর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আবদুস সোবহান সরকার মারা যান।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শ্রীরামপুর গ্রামের কুমিরার বিল এলাকায় ধান কাটার সময় বজ্রপাতে মারা যান মোশাররফ (৩৫) ও রেজাউল (৪০) নামে দুই শ্রমিক। আহত হন দুইজন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নওগার পোরশা উপজেলার একটি মাঠে ধান কাটছিলেন কয়েকজন। এ সময় বজ্রপাতে মারা যান ৩ কৃষিশ্রমিক। আহত হন পাঁচ জন।নিহতদের মধ্যে দুইজনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- শফিনুর রহমান বিষু (৩২), হাসান আলী (৩০)।

কিশোরগঞ্জ উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের থানাঘাট এলাকায় বজ্রপাতে আরিফ (২০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়। উপজেলার এগারসিন্দুর ইউনিয়নের আত্মীয়ের বাড়ি থেকে নিজ বাড়ি যাচ্ছিলো আরিফ। থানাঘাট এলাকায় পৌঁছালে প্রচণ্ড ঝড় ও বৃষ্টি শুরু হয়। এসময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। এ ঘটনায় মুক্তার নামে একজন আহত হন। তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় ঝড়ে দেয়াল ধসে রাকিব (১১) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় আহত হয়েছে তার সহোদর সাকিব (৯) এবং তাদের মা দিলরুবা (৩৬)। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ইফতারের পূর্বে কালবৈশাখী ঝড়ে ঘরের ইটের দেয়াল ধসে পড়ে। ওই দেয়ালে চাপা পড়ে মা এবং দুই সহোদর আহত হয়। এতে রাকিবের মাথা ফেটে যায়। সাকিব মারাত্মক আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে রাকিবকে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। বাকিদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সাকিব ময়মনসিংহ মেডিকেলে চিকিৎসাধীন। মা দিলরুবা কে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

বগুড়া শহরতলির নিশ্চিন্তপুর এলাকায় ঝড়ে ধানবোঝাই ট্রাক উল্টে গেলে ঘটনাস্থলেই হেলপার সাইদুল ইসলাম (২৬) মারা যান। এ ঘটনায় চালক আহত হন। তার নাম জানা যায়নি।