ভুয়া কাবিননামা দিয়ে বিয়ের নাটক করে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

বুধবার, মে ১৫, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভুয়া কাবিননামা দিয়ে বিয়ের নাটক করে ধর্ষণের অভিযোগে আদালতে মামলা হয়েছে। ১৫ মে বুধবার জেলা জজ আবু শামীম আজাদ বিচারাধীন বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলাটি দায়ের হয়।

ধর্ষিতা আদালতে হাজির হয়ে এ মামলা করেন।মামলায় ধর্ষক বরিশাল সদর উপজেলার চর আইচা এলাকার আব্দুস সালাম সিকদারের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান পিন্টুকে অভিযুক্ত করা হয়। অভিযোগে বাদী আদালতে বলেন, ২০১৩ সালে পিন্টুর সাথে পরিচয় হওয়ার পর সম্পর্ক প্রেমে গড়ায়।তাদের প্রেম এত গভীরে যায় যা দুই পরিবারে জানাজানি হয়।

২০১৩ সালের ৫ জুলাই পিন্টু তাদের বাড়িতে এসে কাবিন করার কথা বলে একটি নীল কাগজে স্বাক্ষর নেয়। ওইদিন সে তাদের বাড়িতে থাকে। সেই থেকে ২০১৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত তারা স্বামী স্ত্রী হিসেবে একত্রে বসবাস করে।

২০১৭ সালের ২ জানুয়ারী তারা বরিশাল নগরীতে বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী স্ত্রী হিসেবে বসবাস করে। গতবছর ৩০ ডিসেম্বর থেকে পিন্টু বাসায় আসা বন্ধ করে দেয়। গত ২৬ এপ্রিল স্ত্রীর পিতার বাড়িতে গিয়ে পুনরায় স্ত্রী হিসেবে তাকে ধর্ষণ করে।

সকালে ৪০ হাজার টাকা নিয়ে তাকে ডিভোর্স দেয়ার দাবি জানায়। ধর্ষিতার সন্দেহ হলে সে তার হাতে দেয়া কাবিননামা নিয়ে কাজী অফিসে গিয়ে জানতে পারে কাবিননামা সঠিক নয়। পিন্টু তাকে ভুয়া কাবিননামা দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করেছে।

এধরণের অভিযোগ দেয়া হলে ট্রাইব্যুনাল বিয়ের কাবিননামা দেয়া কাজীকে রেজিস্ট্রার নিয়ে আদালতে হাজির হতে আদেশ দেন বলে আদালত সূত্র জানায়।