ধান সংগ্রহের ক্ষেত্রে কোনো রকম অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না : খাদ্যমন্ত্রী

বুধবার, মে ১৫, ২০১৯

খালিদ হাসান, বগুড়া প্রতিনিধি : প্রান্তিক চাষিদের কাছ থেকে ধান কিনতে হবে। মধ্যস্বত্ত্বভোগীরা যেন ফায়দা লুটতে না পারে সে দিকে নজর রাখতে হবে। সরাসরি চাষিদের কাছ থেকে ধান কিনবেন।

প্রতিটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে সমন্বয় কমিটির মাধ্যমে ধান চাল সংগ্রহ অভিযান অব্যাহত থাকবে। বুধবার দুপুরে বগুড়া শহরের সুত্রারাপুরস্থ সদর খাদ্যগুদামে জেলা খাদ্য বিভাগের আয়োজনে ধান ও চাল সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্য কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এসব কথা বলেন।

তিনি তার বক্তব্য‌ে বলেন, ধান সংগ্রহের ক্ষেত্রে কোনো রকম অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না। কৃষকদের হয়রানি করলে সংশ্লিষ্ট খাদ্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।বিশেষ বরাদ্দ দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। বরাদ্দ একবারই হবে। মানসম্পন্ন চাল কেনা নিশ্চিত করতে হবে।

এসময় খাদ্যমন্ত্রী অারও বলেন, কৃষকদের কাছ থেকে ভালো মানের চাল আর ধান নিতে হবে। সরকার কৃষকদের ধানের ন্যায্য মূল্য দিতে সংগ্রহ মূল্য ধার্য করেছে। চাষিদের শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। সংগ্রহ অভিযানের শুরুর সঙ্গে সঙ্গে ধানের দাম আরও বাড়তে পারে।

বগুড়া জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এসএম সাইফুল ইসলাম জানান, এবার চাল ৩৬ টাকা কেজি, ধান ২৬ টাকা কেজি এবং আতপ চাল ৩৫ টাকা কেজি দরে নেয়া হবে। জেলায় এ বছর চাল সংগ্রহ করা হবে ৭৮ হাজার ৩৫৪ মেট্রিক টন। ধান সংগ্রহ করা হবে ৫ হাজার ৫৮৬ মেট্রিক টন। আতপ চাল সংগ্রহ করা হবে ৭ হাজার ৪৬ টন।

বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিভাগীয় আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মনিরুজ্জামান ও পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা।এ সময় জেলা খাদ্য বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।