নববধূকে দেখতে এসে ধর্ষণ

বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

পটুয়াখালী : পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার বেতমোর গ্রামে এক নববধূকে ধর্ষণ করা হয়েছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে আটটায় এ ঘটনা ঘটে। এরপর রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই নববধূকে কলাপাড়া উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় রাতেই নববধূর স্বামী সুজন হাওলাদার বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়েছে।

মামলার বাদী সুজন হাওলাদার জানান, বুধবার বরগুনা জেলার আমতলী থেকে কলপাড়া উপজেলার চাকামাইয়া ইউনিয়নের বেতমোর গ্রামে খালু শ্বশুড় বশার খানের বাড়িতে নববধূকে নিয়ে বেড়াতে আসেন তিনি। সন্ধ্যায় স্থানীয় বখাটে রুস্তুম ফকিরের ছেলে রফিকে নেতৃত্বে দেলোয়ারের ছেলে রাসেল, এছাহাক হাওলাদারের ছেলে খালেক এবং মন্নান গাজীর ছেলে জাফর ওই বাড়িতে জোর করে প্রবেশ করে ওই দম্পত্তির বিয়ে হয়নি এমন দাবি করে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে।

মারধরসহ পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার ভয়ভীতিও দেখায় তারা। এক পর্যায়ে নববধূর সাথে কথা বলার অজুহাতে তার মুখ চেপে ধরে ঘরের পাশে মাঠের মধ্যে নিয়ে রফিক তাকে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে নববধূ ও পরিবারের সদস্যদের ডাকচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে ধর্ষকসহ বখাটেরা পালিয়ে যায়। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

কলাপাড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, নববধূকে ধর্ষণের ঘটনায় চারজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পটুয়াখালী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।