কিমের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদারের প্রত্যয় পুতিনের

বৃহস্পতিবার, এপ্রিল ২৫, ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : উত্তর কোরীয় নেতা কিম জং উন প্রথমবারের মতো রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হয়েছেন। বৈঠকে দুই নেতা নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক জোরদারের প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বলে বিবিসি জানিয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে রুশ দ্বীপ ভ্লাদিভস্তকে শুরু হয়েছে ওই বৈঠক। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার রুশ বন্দরনগরী ভ্লদিভস্তকের বৈঠকের শুরুতে দুই নেতাকে করমর্দন করতে দেখা যায়। বৈঠকে পুতিন ও কিম দু দেশের গভীর সম্পর্কের দীর্ঘ ইতিহাস নিয়ে আলোচনা করেন। এসময় পুতিন কিমকে বলেন, তিনি কোরীয় উপদ্বীপের উত্তেজনা প্রশমনে সহায়তা করতে চান।

পুতিন বলেন, ‘আমি আশা করি আজ আপনার এ রাশিয়া সফর কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতি উন্নয়নে সহায়তা করবে এবং এ সঙ্কট সমাধানে রাশিয়ার ইতিবাচক সমর্থন অব্যাহত থাকবে।’

উত্তরে কিম বলেন, ‘দু দেশের সম্পর্ক উন্নয়নে এই বৈঠকটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের বন্ধুত্বতার একটি দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে এবং এ বৈঠকের মাধ্যমে যা আরো স্থিতিশীল ও দৃঢ় হবে।’

এর আগে বুধবার রাশিয়া পৌঁছানোর পর তাকে স্বাগত জানান রুশ প্রতিনিধিদল। এ সম্পর্কে কিম বলেন, ‘আমি রাশিয়ায় পৌঁছানোর পর উষ্ণ অভ্যর্থনা পেয়েছি। আবারও বলছি এই বৈঠক ফলপ্রসূ হবে বলে আশাবাদী আমি।’

যদিও রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র দিমিত্রি পেশকভ বলেন, ক্রেমলিন বিশ্বাস করে ছয় জাতি আলোচনাই হচ্ছে একমাত্র উপায় যার মাধ্যমে কোরিয়া উপদ্বীপের পরমাণু সঙ্কটের সমাধান সম্ভব।

এই সঙ্কট সমাধানে ২০০৩ সালে উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়া, চীন, জাপান, রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রকে নিয়ে ৬ জাতি আলোচনা শুরু হয়েছিলো, যা আপাততঃ স্থগিত রয়েছে।

এর আগে বুধবার প্রেসিডেন্ট পুতিনের পররাষ্ট্রনীতিবিষয়ক উপদেষ্টা জুরি উশাকোভ বলেছিলেন, ‘সম্প্রতি কয়েক মাস ধরে কোরীয় উপদ্বীপের পরিস্থিতি কিছুটা স্থিতিশীল। রাশিয়া যতটা সম্ভব চেষ্টা করে যাবে, যেন এই পরিস্থিতি দীর্ঘস্থায়ী হয়।

কিম বলেন, আমি আশা করছি মাননীয় প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে আমি কোরীয় উপদ্বীপ নিয়ে প্রকৃত তথ্য তুলে ধরতে পারবো। আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কও আরও মজবুত হবে বলে আশা করছি আমি।

এই বৈঠক সম্পর্কে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে কিমের দুইটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার পরও উত্তর কোরিয়ার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পরিবর্তন না আসায় পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করতে যাচ্ছেন তিনি। এতে করে বিদেশি সমর্থন আরও শক্তিশালী হবে বলে আশা তার।

বৈঠকের একদিন আগে ক্রেমলিনের মুখপাত্র ইউরি উশাখোভ বুধবার বলেন, এই বৈঠবকের মুল আলোচ্যসূচিই থাকবে পরমাণু ইস্যু। তিনি বলেন,‘বিগত মাসগুলোতে কোরীয় উপদ্বীপে পরিস্থিতি স্থিতিশীল হয়ে উঠেছে। এজন্য উত্তর কোরিয়াকে ধন্যবাদ দিতে হয় কারণ তারা পরমাণু পরীক্ষা বন্ধ করেছে।’

সূত্র: বিবিসি