সাভারে রানা প্লাজা ট্রাজেডি দিবসে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন

বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

জাহিন সিংহ, সাভার থেকে : আজ ২৪শে এপ্রিল। দেশের পোশাক শিল্পে ঘটে যাওয়া সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা রানা প্লাজা ট্রাজেডির ৬ষ্ঠ বার্ষিকী উপলক্ষে অস্থায়ী শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন, হতাহত ও নিখোঁজ পরিবারের সদস্যরা। এসময় ধসে পড়া ভবনের সামনে দাড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে নিহত পোশাক কর্মীদের প্রতি জানানো হয় শ্রদ্ধা।

বুধবার সকালে সাভারের বিভিন্ন শিল্প এলাকা থেকে শ্রমিকরা মিছিল নিয়ে এসে ধসে পড়া ভবনের সামনে নির্মিত অস্থায়ী বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। অভিযুক্তদের বিচার ও নিহত-আহত শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণ, পুর্ণবাসন, তাদের সন্তানদের শিক্ষার ব্যবস্থাসহ সরকারের কাছে নানা দাবি তাদের।

এর আগে দিবসটি উপলক্ষে মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই শুরু হয় বিভিন্ন কর্মসূচী। ১১৩৪টি মোমবাতি জ্বালিয়ে হতাহত ও নিখোঁজদের স্মরণ করে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন, উদ্ধারকর্মী ও হতাহত শ্রমিকদের স্বজনরা।

এসময় শ্রদ্ধা জানাতে আসা শ্রমিক নেতারা বলেন, দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারের পূণর্বাসন, আহতদের আজীবন চিকিৎসা দেওয়া, হতাহত ও নিখোঁজ পরিবারের শিশুদের লেখাপড়া নিশ্চিত করা, আহত উদ্ধারকর্মীদের চিকিৎসা, স্থায়ী স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ, হতাহত পরিবারের চিকিৎসা ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। এছাড়াও রানা প্লাজার জমিটি শ্রমিকদের পুনর্বাসন এবং ভবনের মালিকসহ দোষীদের সর্বো”চ শাস্তি প্রদান ও আসামিদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্তের দাবিও জানান তারা।

এদিকে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে রানা প্লাজার সামনে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ, প্রস্তুত রাখা হয় পুলিশের সাঁজোয়া যান। অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে শ্রদ্ধা নিবেদনে আসা জনসাধারণকে বেশিক্ষণ দাড়াতে দেওয়া হয়নি অস্থায়ী বেদির সামনে। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সরিয়ে দেয়া হয় সবাইকে।

২০১৩ সালের এই দিনে (২৪শে এপ্রিল) সকালে ধসে পড়ে বহুতল ভবন রানা প্লাজা। এতে নিহত হন ১ হাজার ১৩৪ জন আর আহত হন হাজারের বেশি কর্মী। তাই ঘটনার দিনটিকে সরকারীভাবে শোক ঘোষণার দাবি জানান বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতা ও সাধারণ শ্রমিকরা।