পাবনায় ৩ পুলিশ হত্যায় ৮ চরমপন্থীর যাবজ্জীবন

বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

রাজশাহী : পাবনার বেড়া উপজেলার ঢালারচরে তিন পুলিশ হত্যা মামলার আট চরমপন্থীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

বুধবার দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার রায় এক জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় ঘোষণা করেন। অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় মামলার অপর তিন আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু জানান, ১৫ আসামির মধ্যে চারজন বিভিন্ন সময় ক্রসফায়ারে মারা গেছেন। বাকি ১১ আসামির মধ্যে আটজনকে যাবজ্জ্বীবন কারাদণ্ড ও তিনজনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে। তবে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে এখনও দুজন পলাতক রয়েছেন। বাকি ছয়জন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগ মতে, ২০১০ সালের ২০ জুলাই সন্ধ্যায় একদল সশস্ত্র চরমপন্থী পাবনার বেড়া উপজেলার ঢালালচর পুলিশ ফাঁড়িতে আক্রমণ করেন। চরমপন্থীরা ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই কফিল উদ্দিন (৪৮), নায়েক আবদুল ওয়াহেদ আলী (৩৬) ও পুলিশ কনস্টেবল শরিফুল ইসলামকে (৩৫) গুলি করে হত্যা করে।

এ ঘটনায় আহত হন আরও চার পুলিশ সদস্য। এদিকে পুলিশ হত্যার পর চরমপন্থীরা অস্ত্র ও গোলাবারুদও লুট করে নিয়ে যায়। পরে পূর্ব-বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি (লাল পতাকা) নামে একটি সংগঠন পুলিশ হত্যার দায় স্বীকার করে এলাকায় লিফলেট বিতরণ করে।

এদিকে এ ঘটনার পর দিন বেড়া থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করা হয়। পরে তদন্ত শেষে পুলিশ ১৫ জন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

মামলাটি গত বছর পাবনা জেলা ও দায়রা জজ আদালত থেকে রাজশাহীর বিভাগীয় দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হয়। শুনানির পর বুধবার বিচারক এ রায় ঘোষণা করেন।