শিবগঞ্জে শত্রুতার জেরে বসতবাড়ী ভাংচুর ও লুটপাট

মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯

জিএম মিজান, শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার পৌর এলাকার বেড়াবালা ছয়ঘরিয়া গ্রামে পারিবারিক শত্রতার জের ধরে বসতবাড়ী ভাংচুর, স্বর্ণালঙ্কার, গরু, ছাগলসহ বাড়ীর আসবাপপত্র লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।

১০জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৫০-৬০ জনের নামে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। জানা যায়, শিবগঞ্জ উপজেলার পৌর এলাকার বেড়াবালা ছয়ঘরিয়া গ্রামের আব্দুল কালাম আজাদের পুত্র তৌহিদুল ইসলামের সাথে পার্শ্ববর্তী মোকামতলা ইউনিয়নের মুরাদপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের কণ্যা জান্নাতি আক্তারের সাথে চার বছর পূর্বে বিবাহ হয়।

বিবাহের পর থেকে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পারিবারিক দন্দ্ব কলহ লেগেই থাকতো। এর এক পর্যায়ে উভয় পারিবার ছেলে মেয়ের সম্পর্ক বি”েছদের সিদ্ধান্ত নেয়। সম্পর্ক বিচ্ছেদের বিষয়টি নিয়ে উভয় পরিবারে সদস্যদের নিয়ে গত শুক্রবার বেড়াবালা ছয়ঘরিয়া গ্রামে ছেলে তৌহিদুল ইসলামের বাড়িতে বৈঠক বসার সিদ্ধান্ত হয়।

কিন্তু মেয়ে পক্ষ ঐদিনে ১০০-১৫০ জন লোক নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই আব্দুল কালাম আজাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়িঘড় ভাংচুর করে আড়াই ভরি সোনা, নগদ ১,৭৪,০০০ টাকা, বিদেশী দুটি গরুসহ ঘড়ের আসবাপপত্র লুটপাত করে নিয়ে যায়। তাদের বাঁধা দিতে আসলে, আবুল কালাম আজাদ, তার স্ত্রীও একমাত্র ছেলে তৌহিদুলকে বেধরক মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

খবর পেয়ে শিবগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছানোর আগেই সকল মালামাল লুট করে পালিয়ে যায়। এব্যাপারে আবুল কালাম আজাদ বাদী হয়ে শহিদুল ইসলাম, আব্দুল খালেক, আঃ খালেকের বউ আন্জুআরাসহ ১০ জনের নামে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণ করবো।