বৃথা গেল আশরাফুলের লড়াই

মঙ্গলবার, এপ্রিল ২৩, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে আজ ডিপিএলের ম্যাচে মাত্র ৩ রানের রুদ্ধশ্বাস জয় পেয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে দোলেশ্বরের ছুঁড়ে দেয়া ২৭৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৭১ রান তুলতে সক্ষম হয় সোহাগ গাজির মোহামেডান। ফলে মাত্র ৩ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে দোলেশ্বর।

ম্যাচটির শেষ ওভারে জয়ের জন্য মোহামেডানের প্রয়োজন ছিল ১০ রান এবং হাতে ছিল মাত্র একটি উইকেট। সেই ওভারটি করতে আসেন দোলেশ্বর অধিনায়ক ফরহাদ রেজা। তাঁর করা প্রথম বলটি থেকে দুই রান নিতে সক্ষম হয়েছিলেন ক্রিজে থাকা লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যান সাকলাইন সজীব। এরপর দ্বিতীয় বলটিতে মাত্র এক রান নেন তিনি।

তৃতীয় বলটি থেকে আরও একটি রান নেন সজীবের সঙ্গী নিহাদুজ্জামান। পরবর্তীতে চতুর্থ বলটিতে এক রান নিয়ে আবারও নিহাদকে স্ট্রাইক দেন সাকলাইন। কিন্তু পঞ্চম বলে কোনও রান না হওয়ায় শেষ বলে জয়ের জন্য সমীকরণ দাঁড়ায় ১ বলে ৪ রান।

কিন্তু সেই বলটিতে নিহাদুজ্জামান মাত্র ১ রান নিতে সক্ষম হওয়ায় রোমাঞ্চকর জয়ের দেখা পায় দোলেশ্বর। তবে এদিন দারুণ ব্যাটিং করেছেন সাবেক টাইগার অধিনায়ক এবং অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ আশরাফুল। ২৭৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামার পর ব্যাট হাতে অনেকটা একাই লড়াই চালিয়ে গিয়েছেন তিনি। খেলেছেন ৯৭ বলে ৭৬ রানের একটি দায়িত্বশীল ইনিংস।

কিন্তু এরপরেও দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়তে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। আশরাফুল ছাড়া ৩৭ রানের একটি ইনিংস খেলেছেন রাহাতুল ফেরদৌস। এছাড়া ওপেনার ইরফান শুক্কুর ২৬ এবং আব্দুল মজিদ ২৫ রান করতে পেরেছেন। প্রাইম দোলেশ্বরের পক্ষে ৩৪ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছেন তাইবুর রহমান। অপরদিকে ২টি করে উইকেট পেয়েছেন ফরহাদ রেজা এবং মাহমুদুল হাসান।

এর আগে ম্যাচটির শুরুতে টসে হেরে শুরুতে ব্যাটিং করতে নেমে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে ২৭৪ রানের পুঁজি পায় প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব। এদিন সাইফ হাসান, সৈকত আলি এবং ফরহাদ হোসেন পেয়েছেন হাফসেঞ্চুরির দেখা। আর এই তিন ব্যাটসম্যানের কল্যাণে মোহামেডানের সামনে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিতে সক্ষম হয় ফরহাদ রেজার দোলেশ্বর।

শেখ জামালের বিপক্ষে আগের ম্যাচে অপরাজিত ১৪৮ রানের ইনিংস খেলে সাইফ আজ ৫৫ রান করে আউট হয়েছেন। অপরদিকে সৈকত আলির ব্যাট থেকে এসেছে ৬৫ রানের ইনিংস।

তবে রান আউটের শিকার হয়ে সেঞ্চুরি বঞ্চিত হতে হয়েছে ফরহাদ হোসেনকে। ৭৬ বলে ৮৯ রানের ইনিংস খেলেছেন তিনি। ৩৯ রানে ২ উইকেট নিয়ে মোহামেডানের পক্ষে সফল বোলার ছিলেন পেসার শফিউল ইসলাম। এছাড়াও ১টি করে উইকেট নিয়েছেন রাহাতুল ফেরদৌস এবং সাকলাইন সজীব।

এদিন সকাল ৯টায় অনুষ্ঠিত এই ম্যাচটিতে টসে জিতে দোলেশ্বরকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন মোহামেডান অধিনায়ক সোহাগ গাজি। এরপর খেলতে নেমে ২৬ রানের মাথায় ওপেনার জসিমউদ্দিনকে বোল্ড করে ব্রেক থ্রু এনে দেন পেসার শফিউল।

এরপর অবশ্য সাইফ এবং সৈকত আলির ৬৪ রানের জুটিতে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় দোলেশ্বর। এই জুটি গড়ার পথে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন সাইফ। ৯০ রানের সময় রান আউটের শিকার হয়ে ফিরলে এই জুটি ভাঙ্গে। সাইফ ফেরার পর ৮৬ রানের আরেকটি বড় জুটি আসে সৈকত এবং ফরহাদের ব্যাট থেকে। ৬৫ রান করা সৈকতকে সোহাগ গাজির হাতে ক্যাচ বানিয়ে ব্রেক থ্রু এনে দিয়েছিলেন স্পিনার সাকলাইন সজীব।

সৈকতের পর অধিনায়ক ফরহাদ রেজাকে বিদায় নিতে হয়েছে দ্রুত। ১০ রান করে রাহাতুল ফেরদৌসের প্রথম শিকার হয়েছেন তিনি। ফরহাদ রেজা আউট হওয়ার পর ফরহাদ এবং মার্শাল আইয়ুবের ৮৩ রানের জুটিতে বড় পুঁজি নিশ্চিত হয় দোলেশ্বর। মার্শাল ৩৮ রানে শফিউলের বলে শেষ ওভারে আউট হয়েছেন।