গণধর্ষণকারী দুই আসামি আবাসিক হোটেল থেকে আপত্তিকর অবস্থায় গ্রেফতার

শনিবার, মার্চ ২৩, ২০১৯

লালমনিরহাট: লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থলবন্দরে যশোদা পরিবহন নামের একটি বাস কাউন্টারে এক ভারতগামী নারী যাত্রীকে তিন দিন ধরে আটকে রেখে গণধর্ষণের ঘটনায় আরও দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সন্ধায় হাতীবান্ধা উপজেলার আনন্দ আবাসিক হোটেলে এক নারীর সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, পাটগ্রাম উপজেলার ইসলামপুর এলাকার রমজান আলীর ছেলে নুর নবী (২৯) ও হাতীবান্ধা উপজেলার বাড়াইপাড়া গ্রামের আফছার আলীর ছেলে নুর ইসলাম নজু (৪২)। এর আগে, বৃহস্পতিবার এ মামলায় বুড়িমারী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলামকে (৩৫) গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, তিনদিন আগে ভারত যাওয়ার উদ্দেশ্যে শেরপুর থেকে পাটগ্রামের বুড়িমারী স্থলবন্দরে আসেন ওই নারী। এরপর ইমিগ্রেশনে তার কাগজপত্র প্রস্তুত করে দেয়ার নামে যশোদা পরিবহন নামে ওই কাউন্টারের একটি কক্ষে আটকে রাখা হয় তাকে।

পরে রাতে ওই নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে বুড়িমারী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম, স্থানীয় নুরন্নবী ও আনছারুল ইসলাম ওরফে ভোম্বল। সেখানে টানা তিনদিন গণধর্ষণের শিকার হন ওই নারী। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকালে খবর পেয়ে পাটগ্রাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীকে উদ্ধার করে। একই সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।

পাটগ্রাম থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনছুর আলী জানান, এ মামলায় দুই দিনে তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।