পিএসএলে চ্যাম্পিয়ন কোয়েট্টা

সোমবার, মার্চ ১৮, ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : পাকিস্তান সুপার লীগের (পিএসএল) প্রথম দুই আসরের ফাইনালে উঠেও শিরোপা জিততে ব্যর্থ হয়েছিল সরফরাজ আহমেদের কোয়েট্টা গ্ল্যাডিয়েটর্স।

রবিবার চতুর্থ আসরে নিজেদের তৃতীয় ফাইনালে এসে বাজিমাত করেছে দলটি। ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন ড্যারেন স্যামির পেশোয়ার জালমিকে ৮ উইকেটে হারিয়ে প্রথমবারের মত শিরোপা ঘরে তুলেছে কোয়েট্টা।

ফাইনালে তাঁদের জয়ের পেছনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল অভিজ্ঞ আহমেদ শেহজাদ এবং তরুণ পেসার মোহাম্মদ হাসনাইনের। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে দুর্দান্ত খেলা অস্ট্রেলিয়ার শেন ওয়াটসন হয়েছেন টুর্নামেন্ট সেরা।

এদিন টসে জিতে ড্যারেন স্যামির দলকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান সরফরাজ আহমেদ।ব্যাট করতে নেমে স্কোরবোর্ডে ৪ রান যোগ করতেই ওপেনার ইমাম উল হককে হারিয়ে বসে দলটি। ইমাম ফিরলেও কামরান আকমল এবং শোয়েব মাকসুদের ব্যাটে এগোতে থাকে পেশোয়ার।

কামরান দলীয় ৩১ রানে উইকেট ছুঁড়ে দিলেও স্কোরবোর্ডে রান যোগ করতে থাকেন মাকসুদ এবং উমর আমিন। কিন্তু কোয়েট্টার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ১০০’র আগে ৫ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বিপদে পড়ে ড্যারেন স্যামির দল।

নীচের সারির ব্যাটসম্যানরা বড় কোন স্কোর না গড়লেও স্যামির ১৮ এবং ওয়াহাব রিয়াজের ১২ রানের উপর ভর করে নির্ধারিত ২০ অভারে ৮ উইকেটে ১৩৮ রানের পুঁজি পায় পেশোয়ার। মোহাম্মাদ হাসনাইন নেন ৩ উইকেট।

১৩৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে শেন ওয়াটসনকে হারালেও ওপেনার আহমেদ শেহজাদ এবং এহসান আলির ব্যাটে এগোতে থাকে কোয়েট্টা। দলীয় ৬৬ রানে এহসান ফিরলেও অভিজ্ঞ রাইলি রুশো এবং শেহজাদ মিলে দলকে জয়ের বন্দরের দিকে হাঁটতে থাকে দলটি।

শেহজাদ তুলে নেন ফিফটি। এই দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটে ভর করেই ১৩ বল বাকি থাকতে ৮ উইকেটের জয় তুলে নেয় সরফরাজ আহমেদের দল। শেহজাদ অপরাজিত থাকেন ৫৮ রানে।