বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীরা

রবিবার, মার্চ ১৭, ২০১৯

বিশ্বজুড়ে এখন নারীরা আর পিছিয়ে নেই। বিভিন্ন অঙ্গনে তারা পুরুষের পাশাপাশি সমান অবদান রাখছেন। কেউ কেউ ক্ষমাতর শীর্ষে অবস্থান করছেন। এমন কজন ক্ষমতাধর নারী নিয়ে এই অ্যালবাম।

অ্যাঞ্জেলা মার্কেল : বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী নারী জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল। ইউরোপীয় কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট ও জি-৮ সম্মেলনের চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেছেন এই জার্মান রাষ্ট্রপ্রধান। মার্গারেট থ্যাচারের পর তিনিই দ্বিতীয় ব্যক্তি হিসেবে এই সুযোগ পান।

  • হিলারি ক্লিনটন : সারা বিশ্বে সর্বাধিক পরিচিত নারী মুখের তালিকায় সম্ভবত হিলারি ক্লিনটনের নামটাই আগে থাকবে। মার্কিন ফার্স্টলেডিদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে এ যাবৎকালের মধ্যে জনপ্রিয় ফার্স্টলেডি (১৯৯৩-২০০১) ছিলেন হিলারি। নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য থেকে তিনিই প্রথম মার্কিন সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

    হিলারি ক্লিনটন : সারা বিশ্বে সর্বাধিক পরিচিত নারী মুখের তালিকায় সম্ভবত হিলারি ক্লিনটনের নামটাই আগে থাকবে। মার্কিন ফার্স্টলেডিদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে এ যাবৎকালের মধ্যে জনপ্রিয় ফার্স্টলেডি (১৯৯৩-২০০১) ছিলেন হিলারি। নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য থেকে তিনিই প্রথম মার্কিন সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

  • মিশেল ওবামা : মার্কিন ফার্স্টলেডি বারাক ওবামার স্ত্রী মিশেল ওবামা পেশায় একজন আইনজীবী ও লেখক। বিশ্বে ফ্যাশন আইকন হিসেবে পরিচিত মিশেল ওবামা দারিদ্র্য, অপুষ্টি, ক্ষুধার বিরুদ্ধে কাজ করছেন।

    মিশেল ওবামা : মার্কিন ফার্স্টলেডি বারাক ওবামার স্ত্রী মিশেল ওবামা পেশায় একজন আইনজীবী ও লেখক। বিশ্বে ফ্যাশন আইকন হিসেবে পরিচিত মিশেল ওবামা দারিদ্র্য, অপুষ্টি, ক্ষুধার বিরুদ্ধে কাজ করছেন।

  • সোনিয়া গান্ধী : ইতালিয়ান বংশোদ্ভূত সোনিয়া গান্ধী বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ (জনসংখ্যায়) ভারতের কার্যত নেতৃত্ব দিয়েছেন। সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী নিহত হওয়ার পর রাজনীতিতে এসে দলের হাল ধরেন সোনিয়া।

    সোনিয়া গান্ধী : ইতালিয়ান বংশোদ্ভূত সোনিয়া গান্ধী বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ (জনসংখ্যায়) ভারতের কার্যত নেতৃত্ব দিয়েছেন। সাবেক প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী নিহত হওয়ার পর রাজনীতিতে এসে দলের হাল ধরেন সোনিয়া।

  • অং সান সুচি : মিয়ানমারের গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের মানসকন্যা বলে খ্যাত অং সান সুচি। তিনিই একমাত্র নারী যিনি দুদশকের বেশি সময় ধরে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। গণতন্ত্রের জন্য সবচেয়ে ভুক্তভোগী ও ২০ বছর পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন। গত ১৫ বছর ধরে তিনি গৃহবন্দি।

    অং সান সুচি : মিয়ানমারের গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের মানসকন্যা বলে খ্যাত অং সান সুচি। তিনিই একমাত্র নারী যিনি দুদশকের বেশি সময় ধরে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। গণতন্ত্রের জন্য সবচেয়ে ভুক্তভোগী ও ২০ বছর পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন। গত ১৫ বছর ধরে তিনি গৃহবন্দি।

  • অং সান সুচি : মিয়ানমারের গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের মানসকন্যা বলে খ্যাত অং সান সুচি। তিনিই একমাত্র নারী যিনি দুদশকের বেশি সময় ধরে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। গণতন্ত্রের জন্য সবচেয়ে ভুক্তভোগী ও ২০ বছর পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন। গত ১৫ বছর ধরে তিনি গৃহবন্দি।

    অং সান সুচি : মিয়ানমারের গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের মানসকন্যা বলে খ্যাত অং সান সুচি। তিনিই একমাত্র নারী যিনি দুদশকের বেশি সময় ধরে অহিংস আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। গণতন্ত্রের জন্য সবচেয়ে ভুক্তভোগী ও ২০ বছর পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন। গত ১৫ বছর ধরে তিনি গৃহবন্দি।

  • দিলমা রুসেফ :  ব্রাজিলের বর্তমান প্রেসিডেন্ট দিলমা রুসেফ তার যোগ্য নেতৃত্বের জন্য ব্যাপক প্রশংসিত। উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নিয়ে সমাজতান্ত্রিক দলে যোগ দেন এবং মার্কসবাদী শহরে গেরিলা গ্রুপের সদস্য হন। সামরিক এক নায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে ১৯৭০-৭২ জেল খাটার পর দল গঠন করেন।

    দিলমা রুসেফ :  ব্রাজিলের বর্তমান প্রেসিডেন্ট দিলমা রুসেফ তার যোগ্য নেতৃত্বের জন্য ব্যাপক প্রশংসিত। উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্ম নিয়ে সমাজতান্ত্রিক দলে যোগ দেন এবং মার্কসবাদী শহরে গেরিলা গ্রুপের সদস্য হন। সামরিক এক নায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে ১৯৭০-৭২ জেল খাটার পর দল গঠন করেন।

  • অপরাহ উইনফ্রে : মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেলের জনপ্রিয় টকশো উপস্থাপিকা অপরাহ উইনফ্রে একজন আফ্রো-আমেরিকান বিলিয়নিয়র। ফোর্বস ম্যাগাজিনের দৃষ্টিতে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী তালিকায় তার নাম এসেছে বার বার। অপরাহ যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের রাজ্য মিসিসিপির নিভৃত পল্লীতে এক অবিবাহিত মায়ের ঘরে জন্মগ্রহণ করেন।

    অপরাহ উইনফ্রে : মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেলের জনপ্রিয় টকশো উপস্থাপিকা অপরাহ উইনফ্রে একজন আফ্রো-আমেরিকান বিলিয়নিয়র। ফোর্বস ম্যাগাজিনের দৃষ্টিতে বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী তালিকায় তার নাম এসেছে বার বার। অপরাহ যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের রাজ্য মিসিসিপির নিভৃত পল্লীতে এক অবিবাহিত মায়ের ঘরে জন্মগ্রহণ করেন।

  • ইন্দ্রা নুয়ি : তরল পানীয় পেপসিকো কোম্পানির প্রধান নির্বাহী ও চেয়ারম্যান ইন্দ্রা নুয়ি। ২০০৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়ায় নারী সম্মেলনে তিনি অতিথির বক্তব্য রাখেন। তৎকালীন মার্কিন ফার্স্টলেডি মারিয়া শ্রিভার আয়োজিত ওই সম্মেলনে ১৪ হাজার নারী উপস্থিত হন।

    ইন্দ্রা নুয়ি : তরল পানীয় পেপসিকো কোম্পানির প্রধান নির্বাহী ও চেয়ারম্যান ইন্দ্রা নুয়ি। ২০০৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়ায় নারী সম্মেলনে তিনি অতিথির বক্তব্য রাখেন। তৎকালীন মার্কিন ফার্স্টলেডি মারিয়া শ্রিভার আয়োজিত ওই সম্মেলনে ১৪ হাজার নারী উপস্থিত হন।