লোকসভার ভোটে কংগ্রেসের প্রার্থী হচ্ছেন কারিনা

মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২২, ২০১৯

বিনোদন ডেস্ক: বাংলাদেশে ঢালিউডের কাউকে কাউকে দেখা গেলেও ভারতের রাজনীতিতে বলিউড তারকাদের উপস্থিতি বহু পুরোনো। অতীতে ও বর্তমানে বহু অভিনেতা-অভিনেত্রীই রাজনৈতিক অঙ্গনে নিজের পুরোনো পরিচয়কেও ছাপিয়ে গেছেন।

কিছুদিন আগেই বিজেপিতে নাম লিখিয়েছেন বলিউড সুন্দরী মাধুরী দীক্ষিত। এবার সেই পথেই হাঁটছেন কারিনা কাপুর খান। না, বিজেপিতে নয়- তিনি ভারতের বর্তমান বিরোধী দল কংগ্রেসের হয়ে লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হতে চাইছেন।

এরইমধ্যে মধ্যপ্রদেশের ভোপাল থেকে তাকে প্রার্থী করার আভাস নাকি মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস সূত্রে পাওয়া যাচ্ছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে জানানো হয়েছে, কারিনাকে লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী করার দাবিতে মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস নেতা গুড্ডু চৌহান ও আনিস খান দলের কাছে প্রস্তাব রেখেছেন। তাদের প্রস্তাব, কারিনাকে ভোপাল থেকে দাঁড়ানোর সুযোগ দেয়া হোক।

দলটির নেতারা মনে করছেন, কারিনাকে নিয়ে একটা ক্রেজ রয়েছে রাজ্যের যুব সম্প্রদায়ের মধ্যে। প্রচুর অনুরাগীও রয়েছে তার। ফলে এই সুযোগটা ইভিএমে কাজে লাগাতে চায় কংগ্রেস।

এছাড়াও ইতিহাসও কারিনার পক্ষেই। কিংবদন্তি ক্রিকেটার মনসুর আলী খান পাতৌদির পুত্রবধূ কারিনা। পাতৌদির জন্ম ভোপালেই। তার দাদা ভোপালের নবাব ছিলেন। তাই পাতৌদি পরিবারের প্রতি ভোপালের মানুষের আলাদা শ্রদ্ধা রয়েছে।

মনসুর আলী খান নিজে ১৯৯১ সালে ভোপাল থেকেই লোকসভা নির্বাচনে লড়েছিলেন কংগ্রেসের টিকিটে। কিন্তু বিজেপির সুশীলচন্দ্র বর্মার কাছে এক লক্ষ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিলেন তিনি।

তবে কারিনাকে কংগ্রেসের প্রার্থী করার গুঞ্জনে জোর সমালোচনায় নেমেছে ক্ষমতাসীন বিজেপি।