বিএনপি নেতাকে গ্রেফতারকালে পুলিশ-এলাকাবাসী সংঘর্ষ, আটক ৩৫

বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের মহানগরীর ডবলমুরিং থানার পানওয়ালা পাড়া এলাকায় স্থানীয় বিএনপির এক নেতাকে আটক করতে গেলে পুলিশের সাথে এলাকাবাসীর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এঘটনায় ৪ পুলিশসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

এঘটনায় পুলিশ রাতভর অভিযান চালিয়ে হাজী আবুল কাসেম (৪৫) নামে ঐ নেতাসহ ৩৫ জনকে আটক করেছে। পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে প্রায় ২৫০ নারী-পুরুষের বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় মামলা করেছে পুলিশ।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিউদ্দিন সেলিম জানান, এজাহারভুক্ত আসামি ও বিএনপি নেতা হাজী আবুল কাসেমকে আটক করতে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পানওয়ালা পাড়া ছোট মসজিদ এলাকায় পুলিশের একটি টিম অভিযান চালায়। এসময়কা সেলিমের সমর্থক বস্তির লোকজন পুলিশকে বাধা দেয়। এসময় পুলিশ লাঠিচার্জ করলে বস্তির শত শত নারী-পুরুষ পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল মারতে থাকে।

পুলিশের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে। সংঘর্ষে এসআই কিশোরসহ চার পুলিশ সদস্য আহত হয় বলে জানান ওসি মহিউদ্দিন সেলিম।

পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পুরো এলাকা ঘিরে রাতভর অভিযান চালিয়ে বিএনপি নেতার নাম হাজী আবুল কাসেমসহ ৩৫ নারী-পুরুষকে আটক করেছে।

ছোট মসজিদ এলাকার বাসিন্দা আব্দুল হাই জানান, স্থানীয় লোকজনের দাবি হাজী আবুল কাসেম সরকারি জমি লিজ নিয়ে সাধারণ ও নিম্ন আয়ের লোকজনের জন্য বাসা বানিয়ে ভাড়ায় দিয়েছেন। দীর্ঘদিন এলাকার একটি প্রভাবশালী চক্র জায়গাটি দখল করার চেষ্টা চালিয়ে আসছে। তারা পুলিশকে ব্যবহার করে হাজী আবুল কাসেমকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে জায়গা দখলে নিতে। হাজী আবুল কাসেম একজন সৎ ও ধার্মিক ব্যক্তি। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা নেই।

এদিকে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ বাদী হয়ে আটক ৩৫ জনের নাম উল্লেখ্য করে ৯০ জনকে পলাতক দেখিয়ে মোট ২৫০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করেছে।