নতুনভাবে যেসব নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে

বুধবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৮

ঢাকা : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যৌথভাবে ধানের শীষের প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের গ্রেফতার করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।

আজ বুধবার (১২ ডিসেম্বর) রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ অভিযোগ করেন।

রিজভী করেন, রাজধানীর দারুসসালাম থানা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক অভি, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা সাইফুল, খালেক, কাউনিয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা জাকির, উজ্জল, দারুসসালাম থানা বিএনপি নেতা হাজী আব্দুর রহমান, ১২নং ওয়ার্ড ছাত্রদল নেতা অনিক, ইমরান, যুবদল নেতা শিপু, কানাই ইউনিয়ন শ্রমিক দল নেতা মোখলেস, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মামুন ও কাশেমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

যুবদল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের হাজারীবাগ থানা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. ইয়াসিন আলী, শাহবাগ থানা যুবদল সিনিয়র সহসভাপতি এরশাদ ফরাজী, সূত্রাপুর থানা যুবদল সহসভাপতি মানিক দত্ত, কোতোয়ালি থানা যুবদল সহসভাপতি আবু তাহের, হাজারীবাগ থানা যুবদল সদস্য মোক্তার হোসেন এবং কোতোয়ালি থানাধীন ৩২নং ওয়ার্ড যুবদল সভাপতি মো. জাহিদ হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহসাধারণ সম্পাদক ও নিউমার্কেট থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী জাহাঙ্গীর হোসেন পাটোয়ারীকে ডিবি পুলিশ আটক করেছে।

এদিকে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা এলডিপির সহসভাপতি ফজলুল কাদেরকে পুলিশ মধ্যরাতে দরজা ভেঙে আটক এবং চট্টগ্রাম-৭ (রাঙ্গুনিয়া) ধানের শীষের প্রার্থী নুরুল আলমের ছোট ভাই জাহাঙ্গীর আলমকে হাতে অস্ত্র ধরিয়ে দিয়ে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ ছাড়া বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী ও বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুকে আজ গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ ছাড়া নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলায় ধানের শীষের প্রার্থীর মিছিল থেকে বিএনপি নেতা নজরুল ও যুবদল নেতা আল আমিনকে গ্রেফতার করে।

রাজশাহীর চারঘাট বিএনপির সহসভাপতি আবদুর রশীদ মহুরী এবং সলুয়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ফখরুল ইসলামকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

গতকাল সন্ধ্যায় জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর (উত্তর) শাখার সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বিরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বাগেরহাট জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ড. কাজী মনিরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নুর আলমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ থেকে মনোনীত প্রার্থী ইমদাদুল হক মিলন, ফুলপুর থানা বওলা ইউনিয়ন বিএনপি নেতা মো. সেলিম, আবদুল্লাহ আল মামুন কবির, বিএনপি নেতা মোশারফ, ছাত্রদল নেতা মো. খলিল ও মাহফুজকে ফুলপুর থানা পুলিশ গ্রেফতার করে।

নেত্রকোনা-২ নির্বাচনী এলাকা কেন্দুয়া উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি ও মাসকা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া স্বপনসহ চার নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করে।

মেহেরপুর পৌর বিএনপির সহসভাপতি আবদুল বারী ফারুক, জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মো. মুকুলকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

নোয়াখালীর সূবর্ণচর উপজেলা যুবদল সভাপতি ওমর ফারুক এবং সাংগঠনিক সম্পাদক ইব্রাহিম খলিলকে গণসংযোগ করার সময় বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেফতার করেছে।

এ ছাড়া কবিরহাট উপজেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান জেলা বিএনপির সদস্য একরামুল হককে গতকাল ডিবি পুলিশ তুলে নিয়ে যায়।

গতকাল সন্ধ্যায় জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল ঢাকা মহানগর (উত্তর) শাখার সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান মুসাব্বিরকে গ্রেফতারের ঘটনা ভোটারবিহীন অবৈধ ও গণবিচ্ছিন্ন সরকারের ধারাবাহিক অপকর্মেরই অংশ।

রুহুল কবির রিজভী এসব নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত হয়রানিমূলক মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা প্রত্যাহারসহ তার নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।