একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

শেষ মুহূর্তে বিএনপি জোটে ৯ প্রার্থী বদল

রবিবার, ডিসেম্বর ৯, ২০১৮

ঢাকা: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের দিন ৯টি আসনে প্রার্থী রদবদল করেছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট।

আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে রোববার (৯ ডিসেম্বর) বিকেলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত ৯টি চিঠি জমা দেয়া হয়েছে।

যে আসনে প্রার্থী পরিবর্তন করা হয়েছে, তা হলো— মানিকগঞ্জ-১ বিএনপির খন্দকার আব্দুল হামিদ ডাবলুর পরিবর্তে এসএম জিন্নাহ কবীর, সিরাজগঞ্জ-৬ মো. কামরুদ্দীন এহিয়া খানের পরিবর্তে এমএ মুহিত, রংপুর-৫ মোফাখখারুল ইসলাম নবাবের পরিবর্তে গোলাম রাব্বানী, রাজশাহী-৫ নুরুল ইসলামের পরিবর্তে মো. নাদিম মোস্তফা, নওগাঁ-১ মো. মোস্তাফিজুর রহমানের পরিবর্তে মো. ছালেক চৌধুরী, গোপালগঞ্জ-৩ বিএনপির এসএম জিলানী, শেরপুর-২ একেএম মুখলেছুর রহমানের পরিবর্তে মো. ফাহিম চৌধুরী, নাটোর-১ কামরুন্নাহারের পরিবর্তে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের মঞ্জুরুল ইসলাম এবং চট্টগ্রাম-৭ আসনে কুতুব উদ্দিন বাহারের পরিবর্তে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) মো. নুরুল আলম।

প্রসঙ্গত, বিএনপি, ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ২৯৮ আসনে তাদের প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে। এরা সবাই ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়বেন।

এই প্রার্থী তালিকা আজ রোববার বিকেলে নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়া হয়েছে। বিএনপির একটি সূত্র জানায় দুটি আসনে জোটের প্রার্থী থাকছে। তবে তারা ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছেন না।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার একান্ত সচিব এ বি এম আবদুস সাত্তার চূড়ান্ত তালিকা সংবলিত চিঠিতে সই করেছেন।

চিঠিতে জোটের যেসব দলের নিবন্ধন নেই সেসব দলের প্রার্থীদেরও বিএনপির প্রার্থী হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে আছে জামায়াতে ইসলামী, নাগরিক ঐক্য ও জাপা (জাফর)।

দুটি আসনে ধানের শীষের প্রার্থী দেওয়া হয়নি। জানা গেছে, চট্টগ্রাম ১৪ আসনে এলডিপি সভাপতি কর্ণেল (অব.) অলি আহমদ দলীয় প্রতীক ছাতা নিয়ে নির্বাচন করবেন। আর কক্সবাজার– ২ আসনে আছেন জামায়াত নেতা হামিদুর রহমান আযাদ। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে তিনি লড়বেন।

এদের মধ্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও খন্দকার মোশারফ হোসেন দুটি করে আসনে ভোট করছেন।