নীরব শত শত মামলা নিয়ে ভোটের মাঠে সরব

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৮

ঢাকা : মনোনয়ন যাচাই বাছাইয়ের পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী হিসেবে টিকে রয়েছেন দুই হাজার ২৭৯ জন। বাতিল হয়েছে ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র।

বাতিলের খাতায় বেশিরভাগই বিএনপি ও তাদের নেতৃত্বাধীন জোটের প্রার্থী। রয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, ভাইস চেয়ারম্যান এম মোরশেদ খান, মীর নাসিরসহ প্রথমসারির বহু নেতা।

মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পর আওয়ামী লীগের বৈধ প্রার্থী ২৭৮ জন। আর বিএনপির রয়েছেন ৫৫৫ জন।

যাদের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে তাদের্ মধ্যে বেশিরভাগই মামলার আসামি নতুবা ঋণখেলাপি। এছাড়া বিল খেলাপি, সাক্ষর না থাকার কারণেও অনেকের সাজা হয়েছে।

মামলা মাথায় নিয়ে অনেকের মনোনয়নপত্র টিকে গেছে। এমনকি শতাধিক মামলার আসামি হয়েও অনেকে ভোটে আছেন।

ঢাকায় বিএনপির প্রার্থীদের মধ্যে যুবদল সভাপতি সাইফুল আলম নীরব মামলায় এগিয়ে। তার মামলার সংখ্যা ২৬৭টি। তিনি ঢাকা-১২ আসনে বিএনপির প্রার্থী।

রোববার ঢাকার বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে রিটার্নিং অফিসার কেএম আলী আজম সাইফুল আলম নীরবের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন।

এত মামলা নিয়ে নীরব কীভাবে বৈধ প্রার্থী-এর ব্যাখ্যায় এ রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, যুবদলের এই নেতার বিরুদ্ধে দুই শতাধিক মামলা থাকলেও তার কোনো ঋণখেলাপের তথ্য নেই। মনোনয়নপত্রের অন্যান্য সব তথ্য ঠিক আছে।

বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সাইফুল আলম নীরব সরকার বিরোধী আন্দোলনে রাজপথে বরাবরই স্বরব ছিলেন। আন্দোলন থেকে তাকে দূরে রাখার কৌশল হিসেবেই তার নামে বারবার মামলা হয়েছে। গত এক দশকে তাকে বহুবার কারাবরণও করতে হয়েছে।

মনোনয়নপত্র সঠিক বলে বিবেচিত হওয়ার পর নীরব ভোটের মাঠে তৎপরতা বাড়িয়েছেন। নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। কেন্দ্রে কেন্দ্রে কমিটি করছেন। নির্বাচনী প্রস্তুতি নিচ্ছেন।