নির্বাচন কমিশন কারো পক্ষ নেবে না: ইসি মাহবুব

মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৮

ঢাকা : আইনানুগ এবং নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন কমিশন প্রার্থীদের আপিল নিষ্পত্তি করবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মাহাবুব তালুকদার। আজ মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন বাতিল হওয়া প্রার্থীদের আপিলের দ্বিতীয় দিন সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

আপিল নিষ্পত্তির বিষয়ে ‘ব্যক্তিগত কোনো অভিমত আমার নেই’ জানিয়ে এই কমিশনার বলেন, ‘আমরা অবশ্যই ন্যায় বিচার প্রত্যাশী। তবে আমরা যা কিছুই করব, আইনানুগভাবে আমাদের করতে হবে। কারো প্রতি পক্ষপাতিত্ব আমরা অবশ্যই দেখাব না। প্রতিটি কেসের মেরিট আমরা দেখব এবং আমি মনে করি,নির্বাচন কমিশন সব ব্যাপারেই এখন নিরেপক্ষ ভূমিকা রাখবে।’

উদ্দেশ্যমূলকভাবে অনেকের প্রার্থিতা বাতিল করা হয়েছে, প্রার্থীদের এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘এটার ব্যাপারে এককভাবে এই মুহূর্তে আমার কোনো বক্তব্য দেওয়ার কথা না। তাদের যে অভিযোগ এখানে করে তো লাভ হবে না। শুনানিতে তারা তাদের অভিযোগগুলো উপস্থাপন করতে পারবেন। তখন আমরা তাদের অভিযোগ সম্পর্কে অভিহিত হবো।’

দুই পক্ষই বলে যাচ্ছে জাতীয় ঐক্যজোট ও বিএনপি বলেছে নির্বাচনী পরিবেশ নেই। আপনারা নির্বাচনী পরিবেশ কতটা দেখতে পাচ্ছেন-সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘এই ধরনের প্রশ্নের উত্তর আজকের এইখানে দেওয়ার অবস্থায় নেই আমি।

কারণ হলো নির্বাচনী পরিবেশ আছে কি নেই, এটা যদি দুই পক্ষই বলে তো আমরা এখন কী বলব এই ব্যাপারে। এটা পরবর্তী সময়ে আলাপ আলোচনা করে আমরা দেখতে পারি, নির্বাচনী পরিবেশ আছে কি নেই। এই মুহূর্তে আছে কিংবা নেই এর কোনোটা বলার জন্য আমি প্রস্তুত নই।’

যে সব কারণ দেখিয়ে প্রার্থীর মনোনয়ন অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে, ইসিতে এসে ওই প্রার্থী কিছুটা ফ্লেক্সিবিলিটি পাবে কি না-এমন প্রশ্নের উত্তরে কমিশনার বলেন, ‘এই বিষয়টা তো আমি বলেছি, যাদের যা কিছুই অভিযোগ আছে, তারা সেই অভিযোগগুলো এইখানে লিপিবদ্ধ করে আমাদের এইখানে দেবেন, তারপরে তাদের এই প্রত্যোকটি অভিযোগের বিষয়ে শুনানি করব। শুনানি করে আমরা এই ব্যাপারে ব্যবস্থা নিব।’

মাহাবুব তালুকদার আরও বলেন, ‘আমার কথা হলো এইগুলো অভিযোগের প্রশ্নের উত্তর আমি এই মুহূর্তে দিতে পারি না। এই মুহূর্তে আমি এইটার জন্য প্রস্তুত না। আমি কেবল এখানে দেখতে আাসছি যারা অভিযোগপত্র আমাদের এইখানে জমা দিতে এসেছে, তাদের কোনো অভিযোগ আছে কি না জমা দেওয়ার ব্যাপারে কোনো অসুবিধা হচ্ছে কি না। আমি সেগুলো কেবল দেখতে এসেছি।’

ন্যায় বিচারের পক্ষে ইসি স্বচ্ছ থাকবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি কখনো এই কথা বলব না, ন্যায় বিচারের পক্ষে স্বচ্ছ থাকব না। এটা কখনো বলব না। ন্যায় বিচারের ব্যাপারটা তো আপেক্ষিক। এটার কোনো উত্তর এই মুহূর্তে আমার পক্ষে দেওয়া সম্ভব না। একটা ন্যায়বিচার একটা পর্যায়ে গিয়ে তিনি হয়তো দণ্ডপ্রাপ্ত হন, পরবর্তী পর্যায়ে দেখা গেল তার দণ্ডপ্রাপ্ত মওকুফ করা হলো। সুতরাং এটা তো একটা আপেক্ষিক বিষয়। কোনটা ন্যায়বিচার আর কোনটা ন্যায়বিচার নয়, এটার তো আমি বিচারক নই।’