ময়মনসিংহের ১১টি আসনে ১২০ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা

বুধবার, নভেম্বর ২৮, ২০১৮

ময়মনসিংহ: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য ময়মনসিংহের ১১টি আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মোট ১২০ জন প্রার্থী জেলা রিটার্নিং ও উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

বুধবার (২৮ নভেম্বর) দিনব্যাপী মনোনয়নপত্র জমাদানকারীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ৯ জন, বিএনপির ২৭ জন, জাতীয় পার্টির ৭ জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ৯ জন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ৬ জন, জাকের পার্টির ৬ জন, সিপিবির ২ জন, জাসদ-(ইনু)র ২ জন, গণফোরামের একজন, নাগরিক ঐক্যের একজন, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপির ২ জন, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের একজন, ইসলামী ঐক্যজোটের একজন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির ৩ জন, ডেমোক্রেটিক লীগের একজন, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালাইন্স-এনডিএ’র একজন, ন্যাপের একজন, তরিকত ফেডারেশনের একজন, ওয়াকার্স পাটির একজন, খেলাফত মজলিসের একজন, গণফ্রন্টের একজন ও জামায়াতে ইসলামীর একজন ও স্বতন্ত্র ৫ জন প্রার্থী রয়েছেন। এছাড়াও এসব আসনে আওয়ামী লীগের ১২ জন ও বিএনপির একজন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।

এর মধ্যে ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) আসন থেকে বিভিন্ন দলের ১১ জন, ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) থেকে ৮ জন, ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) থেকে ১৭ জন, ময়মনসিংহ-৪ (সদর) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) থেকে ১৩ জন, ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) থেকে ৯ জন, ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) থেকে ৯ জন, ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) থেকে ১২ জন, ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) থেকে ১১ জন এবং ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) আসন থেকে ৬ জন রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

যেসব আসন থেকে যে যে দলের কিংবা বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী যারা:
ময়মনসিংহ-৪ (সদর) ও ৭ (ত্রিশাল) আসনে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান বেগম রওশন এরশাদ, ময়মনসিংহ-৪ (সদর) আসনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ড্যাব সভাপতি ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) আসনে জাকের পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি মোস্তফা আমীর ফয়সল মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

আসনভিত্তিক মনোনয়নপত্র দাখিলকারীরা হলেন, ময়মনসিংহ-১ (হালুয়াঘাট-ধোবাউড়া) : জুয়েল আরেং (আ.লীগ), অ্যাডভোকেট আফজাল এইচ খান (বিএনপি), সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স (বিএনপি), আলী আসগর (বিএনপি) ও সালমান ওমর রুবেল (বিএনপি), হুমায়ুন মো. আব্দুল্লাহ আল হাদী (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), বাবুল দেবনাথ ও আব্দুস সালাম (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ)।

ময়মনসিংহ-২ (ফুলপুর-তারাকান্দা) : শরীফ আহমেদ (আ.লীগ), শাহ শহীদ সারোয়ার (বিএনপি) ও অ্যাডভোকেট আবুল বাশার আকন্দ (বিএনপি), মুফতি গোলাম মওলা ভূইয়া (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও অ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম (নাগরিক ঐক্য) ও মাওলানা তৈয়বুর রহমান (ইসলামী ঐক্যজোট)।

ময়মনসিংহ-৩ (গৌরীপুর) : নাজিম উদ্দিন আহামেদ (আ.লীগ), ডা. মতিউর রহমান (আ.লীগ বিদ্রোহী), এ কে এম আব্দুর রফিক (আ.লীগ বিদ্রোহী), আলী আহম্মদ খান পাঠান সেলভী (আ.লীগ বিদ্রোহী), নাজনীন আলম (আ.লীগ বিদ্রোহী), শরীফ হাসান অনু (আ.লীগ বিদ্রোহী), ড. সামিউল আলম লিটন (আ.লীগ বিদ্রোহী), মোর্শেদুজ্জামান সেলিম (আ.লীগ বিদ্রোহী), ইঞ্জিনিয়ার এম ইকবাল হোসেইন (বিএনপি), আহাম্মদ তায়েবুর রহমান হিরণ (বিএনপি) ও ডা. মো. আবদুস সেলিম (বিএনপি), হার্বন আল বারী (সিপিবি), আব্দুল মতিন মাস্টার (ন্যাপ), আইয়ুব আলী (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), গোলাম মোহাম্মদ (জাকের পার্টি) ও প্রাণেশ পন্ডিত (তরিকত ফেডারেশন)।

ময়মনসিংহ-৪ (সদর): বেগম রওশন এরশাদ (জাতীয় পার্টি), ডা. আবু জাফর মো. জাহিদ হোসেন (বিএনপি), দেলোয়ার হোসেন খান দুলু (বিএনপি), মো. আবু ওয়াহাব আকন্দ ওয়াহিদ (বিএনপি) ও অ্যাডভোকেট এমদাদুল হক মিল্লাত (সিপিবি), মো. হামিদুল ইসলাম (ন্যাশনাল পিপলস পাটি-এনপিপি) ও আবু সায়িদ মহিউদ্দিন আহমদ (ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালাইন্স-এনডিএ)।এছাড়া এই আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রির সভাপতি এবং এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক আমিনুল হক শামীম।

ময়মনসিংহ-৫ (মুক্তাগাছা) : কে এম খালিদ বাবু (আ.লীগ), সালাহউদ্দিন আহামেদ মুক্তি (জাতীয় পার্টি), মোহাম্মদ জাকির হোসেন বাবলু (বিএনপি), জাকির হোসেন বাবুল (ওয়াকার্স পার্টি-মেনন), জহিরুল ইসলাম (জাকের পার্টি), হাকিম মঞ্জুরুল হক (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মুফতি হাবিবুর রহমান (খেলাফত মজলিস), সামান মিয়া (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি), শাহিনুল আলম ও সোহেল মিয়া (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ), মোস্তফা কামাল (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-৬ (ফুলবাড়ীয়া) : অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন (আ.লীগ), ইঞ্জিনিয়ার শামসুদ্দিন আহমদ (বিএনপি) ও মো. আকতারুল আলম ফারুক (বিএনপি), অধ্যাপক জসিম উদ্দিন (জামায়াত-স্বতন্ত্র), খন্দকার রফিকুল ইসলাম (জাতীয় পার্টি), শফিকুল ইসলাম মিন্টু (জাসদ-ইনু), মো.নুরুল আলম সিদ্দিকী (ইসালমী আন্দোলন বাংলাদেশ), মো. বিল্লাল হোসেন (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ)।

ময়মনসিংহ-৭ (ত্রিশাল) : বেগম রওশন এরশাদ (জাতীয় পার্টি), হাফেজ রুহুল আমিন মাদানী (আ.লীগ), ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন (বিএনপি), জয়নাল আবেদীন (বিএনপি) ও আমিন সরকার (বিএনপি), মাওলানা আজিজুল হক (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), মোস্তফা আমীর ফয়সল (জাকের পার্টি) ও আব্দুর রাজ্জাক রাজ (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) : ফখরুল ইমাম (জাতীয় পার্টি), সৌমেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী (আ.লীগ বিদ্রোহী), শাহ নুরুল কবির শাহীন (বিএনপি) ও লুৎফুল্লাহেল মাজেদ বাবু (বিএনপি), রুহুল আমিন মাস্টার (বিএনপি-বিদ্রোহী), মাহমুদ হাসান সুমন (আ.লীগ বিদ্রোহী), অ্যাডভোকেট এ এইচ এম খালেকুজ্জামান (গণফোরাম), সাইফুদ্দিন আহাম্মেদ মনি (ডেমোক্রেটিক লীগ), মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ), খিজির হায়াত খান (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ) ও আবুল বাসার (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি)।

ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) : আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন (আ.লীগ), মেজর জেনারেল অব: আব্দুস সালাম (আ.লীগ বিদ্রোহী), খুররম খান চৌধুরী (বিএনপি) ও মো. ইয়াসের খান চৌধুরী (বিএনপি), অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন আহামেদ (জাসদ-ইনু), মুফতি সাইদুর রহমান (ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন), মোঃ আলমগীর কবির উজ্জ্বল খান (কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ), শফিকুল আলম (জাকের পার্টি), লতিফুল বারী হামিম (গণফোরাম), মোঃ আব্দুল কাদির (স্বতন্ত্র) ও মোঃ শহিদুলৱাহ (স্বতন্ত্র)।

ময়মনসিংহ-১০ (গফরগাঁও) : ফাহমি গোলন্দাজ বাবেল (আ.লীগ), মো. ওবায়দুল্লাহ আনোয়ার বুলবুল (আ.লীগ বিদ্রোহী), এ বি সিদ্দিকুর রহমান (বিএনপি) ও আকতারুজ্জামান বাচ্চু (বিএনপি), ক্বারী হাবিবুল্লাহ বেলালী (জাতীয় পার্টি), মজিবর রহমান (জাতীয় পার্টি), এস এম মোরশেদ (লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপি), দ্বীন ইসলাম (গণফ্রন্ট), নুরুদ্দিন (ন্যাশনাল পিপলস পার্টি-এনপিপি) ও মাওলানা জয়নাল আবেদিন (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ)।

ময়মনসিংহ-১১ (ভালুকা) : কাজিম উদ্দিন আহামেদ ধনু (আ.লীগ), ফখরুদ্দিন আহমদ বাচ্চু (বিএনপি), অ্যাডভোকেট আনোয়ার আজিজ টুটুল (বিএনপি) ও মোর্শেদ আলম (বিএনপি), অ্যাডভোকেট আমানউল্লাহ সরকার (ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ) ও নাজমা আক্তার (জাকের পার্টি)।