ভোলা-১: দশমবারের মতো মনোনয়ন পেলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৮

ঢাকা : ভোলা-১ আসনে দশমবারের মতো আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

তার পক্ষে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার দফতর থেকে সোমবার মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু।

ভোলা-১-সহ জেলার ৪টি আসনেই আওয়ামী লীগের নির্বাচনী তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে। তোফায়েল আহমেদ এবার নিয়ে ১০ বার নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন। এর মধ্যে ৭ বারই তিনি বিজয়ী হন।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শে লালিত বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ জানান, বঙ্গবন্ধু তাকে কনিষ্ঠ সদস্য হিসেবে মাত্র ২৬ বছর বয়সে ১৯৭০ সালে প্রথম মনোনয়ন দেন। ওই থেকেই বিজয়ের ধারা শুরু। এর পর প্রার্থী হন ১৯৭৩, ১৯৭৯, ১৯৮৬, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০১, ২০০৮ ও ২০১৪ সালে। এর মধ্যে ১৯৭০, ১৯৭৩, ১৯৯১, ১৯৯৬, ২০০৮ ও ২০১৪ সালে ভোলা-১ থেকে ও ১৯৮৬ সালে ভোলা-২ থেকে নির্বাচিত হন। ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালে ভোলা-২ আসন (দৌলতখান-বোরহানউদ্দিন) থেকেও নির্বাচিত হন। বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী তোফায়েল আহমেদ এবারও ভোলা-১ আসন থেকে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নেন।

ইতিমধ্যে জেলা সদর উপজেলার ১৩ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় ১১৩টি ভোট কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটিতে সদস্য রয়েছেন ১৭ হাজার ২৬ জন। এক এক সদস্য ১০ জন ভোটারের কাছে প্রচারণা ও ভোট চাইবেন।

ফলে এমন সংগঠিত পরিবেশে তোফায়েল আহমেদের বিজয় এবারও নিশ্চিত বলে মনে করছেন জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা। অপরদিকে ভোলার অপর ৩টি আসনে আবারও মনোনয়ন পেয়েছেন গত নির্বাচনে বিজয়ী সংসদ সদস্যরাই। এরা হচ্ছেন ভোলা-২ আসনে বাণিজ্যন্ত্রী তোফায়েল আহমেদের ভাইয়ের ছেলে আলী আজম মুকুল। যিনি জনপ্রিয়তা প্রমাণে সফল হওয়ায় দ্বিতীয়বারের মতো আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন। একইভাবে তৃতীয়বারের মতো মনোনয়ন পেলেন ভোলা-৩ আসনে নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, ভোলা-৪ আসনে চতুর্থবারের মতো মনোনয়ন পেলেন বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব।