গাড়িতে পতাকা উড়িয়ে মন্ত্রী-এমপিদের শোডাউন বন্ধ : ইসি সচিব

মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৭, ২০১৮

ঢাকা : রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় মন্ত্রী ও এমপিদের গাড়ির পতাকা নামিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে যেতে হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন। তিনি বলেন, কোনও প্রার্থী ৫ থেকে ৭ জনের বেশি লোক নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারবেন না।

আজ মঙ্গলবার (২৭ নভেম্বর) বিকেলে আগারগাঁওস্থ নির্বাচন ভবনে ইসির মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

পতাকাসহ গাড়ি নিয়ে মন্ত্রী-এমপিরা মনোনয়নপত্র জমা দিতে যেতে পারবেন কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, না, পারবেন না। কেউ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য নিজ এলাকায় গেলে পতাকা নামিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে যেতে হবে।

সচিব আরো বলেন, মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় শোডাউন বা সভা–সমাবেশ করা যাবে না। কেউ করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্রের বিষয়ে সচিব বলেন, ‘তার মনোনয়নের বিষয়টি আইনি বিষয়। এ বিষয়ে আমাদের কিছু বলার নেই।’

হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, নির্বাচনী কাজে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা যাবে না। নির্বাচনী কাজে যাতায়াতে শুধু দলীয় প্রধানরা হেলিকপ্টার ব্যবহার করতে পারবে। তবে হেলিকপ্টার থেকে লিফলেট ফেলতে পারবেন না।

এছাড়া আমরা শুনেছি অনেকে এরই মধ্যে নির্বাচনী প্রচারণা চালানো শুরু করেছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলেও জানান সচিব।

নির্বাচনী আচরণবিধির প্রসঙ্গ তুলে ইসি সচিব বলেন, ‘রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় কোনও প্রার্থী বাস ও ট্রাক মিছিল, মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা, মশাল মিছিলসহ কোনও ধরনের শোডাউন করতে পারবেন না। ইতোমধ্যে মনোনয়মপত্র জমা দেওয়ার আগে কোনও কোনও স্থানে এ ধরনের শোডাউনের তথ্য আামরা পেয়েছি। আমরা রির্টানিং অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছি, এগুলো প্রতিহত করা এবং আচরণবিধি লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।’

রির্টানিং অফিসারদের গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলায় নিষেধাজ্ঞা নেই দাবি করে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, আমরা জনপ্রশাসনসহ সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরে চিঠি দিয়ে জানিয়েছি, তারা যেনো কেউ রিটার্নিং কর্মকর্তাদের ব্রিফ না করেন। রিটার্নিং কর্মকর্তারাও যেনো কারও ব্রিফে অংশ না নেন। তবে আমরা রিটার্নিং কর্মকর্তাদের গণমাধ্যমে কথা না বলার বিষয়ে কোনও চিঠি দেইনি। এই বিষয়টি ভুল বোঝাবুঝি হয়ে থাকলে আমরা তাদের বলে দেবো এবং প্রয়োজনে আবার চিঠি দেবো।

ফেসবুকে নির্বাচনী প্রচারণায় ইসির কিছু করণীয় নেই জানিয়ে ইসি সচিব বলেন, ‘সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারণার বিষয়ে আমরা কিছুই বলিনি, এটা আচরণবিধিতে আনার সুযোগ নেই। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেনো অপপ্রচার না হয় এই নির্দেশনা আমরা দিয়েছি।’