বোথামকে টপকে সবার উপরে সাকিব

শনিবার, নভেম্বর ২৪, ২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক: টেস্ট ক্যারিয়ারে ৩৭২৭ রানের সঙ্গে ২০১ এক উইকেট যোগ করে এখন ইংলিশ কিংবদন্তি ইয়ান বোথামকে ছাড়িয়ে গেলেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনে সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একটি উইকেট নিলেই হতো সাকিবের। নিলেন দুটি। তবে কাইরন পাওয়েলকে ফিরিয়ে টেস্টে ২০০ উইকেট পূর্ণ করেন তিনি। এর পর ৩ রান করা শাই হোপকে মুশফিকের ক্যাচ বানিয়ে ২০১ উইকেটের মালিক হন সাকিব।

সাকিব ৫৪ টেস্ট খেলে ৩৭২৭ রান ও ২০১ উইকেট নিয়েছেন। আর বোথাম এ রেকর্ড গড়েছিলেন ৫৫ টেস্ট খেলে। যেখানে টেস্টে ২০০ উইকেট নিতে ক্রিস কেয়ার্নস ৫৮, অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফ ৬৯, কপিল দেব ৭৩, ইমরান খান ৭৫, গ্যারি সোবার্স ৮০, রিচার্ড হ্যাডলি ৮৩, শন পোলক ৮৭, ড্যানিয়েল ভেটোরি ৮৯, জ্যাক ক্যালিস ১০২, চামিন্দা ভাস ১০৮, স্টুয়ার্ট ব্রড ১২১ ও শেন ওয়ার্নকে ১৪২ ম্যাচ খেলতে হয়েছে।

শুধু তাই নয়, প্রথম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে টেস্টে ২০০ উইকেটের মালিকও এখন সাকিব। ১০০ উইকেট নিয়ে সাকিবের পরেই আছেন সাবেক বাঁহাতি স্পিনার মোহাম্মদ রাফিক।

চট্টগ্রাম টেস্টে মোট ৪ উইকেট নিতে পারলেই সাকিবের এই অনন্য কীর্তি গড়া হয়ে যেতো। সেই পথেই হেঁটেছেন তিনি। প্রথম ইনিংসেই ৩ ক্যারিবীয়ানকে নিজের শিকারে পরিণত করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে আরও ২ উইকেট নিয়ে সবার উপরে উঠে আসেন এই অলরাউন্ডার।

২০০৭ সালের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামেই ভারতের বিপক্ষে অভিষেক হয়েছিল সাকিবের। সেই ম্যাচে খুব বেশি ভালো করতে পারেননি। তবে প্রায় ১১ বছর পর একই ভেন্যু সাকিবের ক্যারিয়ারে স্মরণীয় মুহূর্ত এনে দিলো।

৩ হাজার রানের ক্লাবের সদস্য সাকিব হয়েছিলেন বেশ আগেই। ২০০ উইকেট তাকে জায়গা করে দিল অভিজাত ক্লাবে, যে ক্লাবের সদস্য সাকিবকে নিয়ে হলো ১৪ জন। তবে সবচেয়ে কম টেস্ট খেলে সেখানে পৌঁছালেন সাকিব। সাকিবের চেয়ে কম ম্যাচ খেলে ২০০ উইকেট ছুঁয়েছেন টেস্ট ইতিহাসের ৪৫ জন বোলার। তবে বাঁহাতি স্পিনারদের মধ্যে তার চেয়ে দ্রুততম কেবল দুই জন। ৪৭ টেস্টে ২০০ ছুঁয়েছিলেন রঙ্গনা হেরাথ ও ৫১ টেস্টে বিষেন সিং বেদি।

উল্লেখ্য, টেস্ট ক্যারিয়ারে ৫৪ ম্যাচে ১০২ ইনিংস ব্যাট করে ৩৯.২৩ গড়ে ৩৭২৭ রান করেন সাকিব। যেখানে তার স্টাইক রেট ৬২.০। অর্ধশতক ২৩টি, শতক ৫টি ও একটি ডাবল সেঞ্চুরি। এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহ ২১৭। ১৯টি ছক্কা ও ৪৬৪টি চারের সাহায্যে ৫৪ টেস্টে এই রান সংগ্রহ করেন তিনি।

অন্যদিকে বল হাতে এই ৫৪ টেস্টে ৬৩২২ রান দিয়ে ২০১ উইকেট নেন সাকিব। যেখানে তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ৩৬ রানে ৭ উইকেট। এছাড়া একবার দুই ইনিংসে ১০টি উইকেট নেন তিনি ১২৪ রান দিয়ে।