বুড়িগঙ্গায় মিললো বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীর লাশ

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২২, ২০১৮

ঢাকা: যশোরে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী আবু বকর আবুর লাশ মিলেছে রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীতে। বিএনপির মনোনয়ন বোর্ডে সাক্ষাৎকার দিতে ঢাকায় আসার পর গত ৪ দিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন তিনি।

নিহত আবু বকর আবু যশোর জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও কেশবপুর উপজেলার মজিদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন।

সোমবার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদী থেকে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থানার পুলিশ অজ্ঞাত হিসেবে লাশটি উদ্ধার করে।

কেরানীগঞ্জ দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান বলেন, সোমবার বিকেলে আমরা বুড়িগঙ্গা নদী থেকে আমরা অজ্ঞাত একজনের লাশ উদ্ধার করি। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে নিহতের পরিবার দাবি করছে লাশটি আবু বকর আবুর। লাশটির পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পরেই তার পরিবারের হাতে হস্তান্তর করা হবে।

বৃহস্পতিবার কেরানীগঞ্জ থানার ফেসবুক পেজে এ বিষয়টি দেখে আবু বকর আবুর লাশ শনাক্ত করেন তার ভাতিজা হুমায়ূন কবির।

এর আগে রবিবার রাতে রাজধানীর পল্টন এলাকা থেকে তাকে অপহরণ করা হয়। মুক্তিপণ দেয়ার পরও সন্ধান না পাওয়ায় তার পরিবার ও কর্মী-সমর্থকরা উদ্বেগ উৎকণ্ঠার মধ্যে ছিলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী আবু বকর আবু গত ১২ নভেম্বর ঢাকায় পৌঁছান। সোমবার (১৯ নভেম্বর) সাক্ষাৎকার বোর্ডে অংশ নেয়ার জন্য পল্টন এলাকার মেট্রোপলিটন হোটেলে চতুর্থতলায় ৪১৩নং রুমে অবস্থান করছিলেন। রবিবার রাত ৮টার পর তাকে আর পাওয়া যায়নি।

পরে রাত ১০টার দিকে একটি মোবাইল ফোন থেকে কেশবপুরে অবস্থানরত তার এক ভাগনের কাছে ফোন দিয়ে তার মামার জন্য দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। সোমবার সকালে অপহরণকারীদের দেয়া বিভিন্ন নম্বরে দেড় লাখ টাকা বিকাশ করা হয়। পরে তাদের চাহিদা অনুযায়ী আরও ২০ হাজার টাকা দেয়া হয়।

এরপর থেকে অপহরণকারীদের সব মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। কিন্তু গত ৪ দিনেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল।

ঢাকায় অবস্থানরত তার ভাতিজা হুমায়ূন কবির জানান, তার চাচা নিখোঁজের ঘটনায় শাহাবাগ থানায় একটি অভিযোগ করা হয়। এরপর থানা পুলিশের একটি দল হোটেলে গিয়ে সিসি ফুটেজ সংগ্রহ করেন।

তবে এখনও এ ব্যাপারে থানায় কোনো জিডি বা মামলা রেকর্ড হয়নি বলে ঢাকায় অবস্থানরত তার ভাগনে আশিকুর রহমান জানান।