পূর্বসূরিরা অনেক কিছু জানিয়েছে, তাদের পথে হাঁটতে চাই: মিলার

সোমবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৮

ঢাকা: বাংলাদেশের নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূতের পথেই হাঁটতে চান বলে জানিয়েছেন নবনিযুক্ত মার্কিন কূটনীতিক আর্ল রবার্ট মিলার।

রবিবার (১৮ নভেম্বর) রাতে সেগুনবাগিচা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাতে মার্সিয়া ব্লুম বার্নিকাটের স্থলাভিষিক্ত হওয়া এই নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত।

রবার্ট মিলার বলেন, ‘আমি আমার পূর্বসূরিদের কাছ থেকে বাংলাদেশ সম্পর্কে অনেক কিছু জেনেছি। তারা এখানকার অনেক ঘটনার সাক্ষী।’

বাংলাদেশের অনেক ইতিবাচক দিক রয়েছে উল্লেখ করে রবার্ট মিলার বলেন, ‘পূর্বসূরিদের কাছ থেকে লব্ধ জ্ঞান আমার চলার পথে সহায়ক হবে।’

‘আমি তাদের দেখানো পথেই হাঁটতে চাই। আমাদের উন্নয়ন অংশীদার বাংলাদেশকে আরো সমৃদ্ধকরণে কাজ করতে আমি প্রস্তুত। ’

এর আগে রবিবার (১৮ নভেম্বর) বিকেলে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তিনি এসে পৌঁছান। এ সময় ঢাকাস্থ মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তারা তাকে স্বাগত জানান। আজ নবনিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে পরিচয়পত্র পেশ করবেন বলে কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে।

চলতি বছরের ১৭ জুলাই বতসোয়ানায় দায়িত্ব পালনরত এই মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে মনোনীত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মিলার ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে কনস্যুল জেনারেল ছিলেন। তিনি নয়াদিল্লি, বাগদাদ ও জাকার্তায় আঞ্চলিক নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়াও কূটনীতিক নিরাপত্তা সেবা বিষয়ক মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে কাজ করেছেন মিলার।

বর্তমান মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের মেয়াদ শেষ পর্যায়ে। বার্নিকাট ২০১৫ সালের ২৪ জানুয়রিতে রাজনৈতিক অস্থিরতা চলাকালে ঢাকায় যোগদান করেন। তার আগে ২০১৪ সালের ২২ মে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের ১৫তম রাষ্ট্রদূত হিসেবে মার্সিয়া বার্নিকাটকে মনোনীত করেন।