গায়েবি মামলা ও গ্রেফতার বন্ধে ইসির হস্তক্ষেপ চাইল বিএনপি

শুক্রবার, নভেম্বর ১৬, ২০১৮

ঢাকা: গত কয়েক বছর ধরে বিশেষ করে চলতি বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মিথ্যা ও গায়েব মামলা দিয়ে গ্রেফতার ও হয়রানি করা হচ্ছে। এসব বানোয়াট মামলা প্রত্যাহারসহ গ্রেফতারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি দিতে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানিয়েছেন দলটি।

বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বরাবর এক চিঠিতে গায়েবি মামলার বিরুদ্ধে ব্যবস্থার নেয়ার দাবি করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সিইসিকে দেয়া চিঠিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তফসিল ঘোষণার পরও বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে শত শত মিথ্যা মামলা দেয়া হচ্ছে এবং গ্রেফতার করা হচ্ছে। বিএনপির প্রধান কার্যালয়ে মনোনয়ন প্রার্থীরা যখন আসছেন তখন পথে পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা। শত শত নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করছে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অমান্য করে আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা চার দিন ধরে বিএনপির প্রধান কার্যালয় নয়াপল্টনের আশপাশের যত লিংক রোড আছে সেখানে পাহারা বসিয়ে নেতাকর্মীদের তল্লশি করছে। এমনকি মনোনয়নপত্র কেড়ে নিয়ে ছিড়ে ফেলছে তারা।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, ‘শুধু গতকালই ৬০-৭০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে, এখানো গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে। এমন গ্রেফতার ও হয়রানি করা হলে নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ হবে। তফসিল ঘোষণার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নির্বাচন কমিশনের অধিনে চলে আসে। তাই বিএনপিসহ বিরোধীদলীয় নেতার্কমীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলার মাধ্যমে গ্রেফতার বন্ধে আপনার হস্তক্ষেপ কমনা করছি।’