১৮ বছরের রেকর্ড ভেঙে চূড়ামণি মুশফিক

সোমবার, নভেম্বর ১২, ২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক: টেস্ট ক্রিকেটের বয়স প্রায় ১৪১ বছর। ১৮৭৭ সালের ১৫ মার্চ অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে ক্রিকেট ইতিহাসে সাদা পোশাকের পথচলা শুরু হয়। এই দীর্ঘ সময়ে অজস্র কীর্তি আর অর্জনে ধন্য হয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সবচেয়ে পুরোনো আর সবচেয়ে দীর্ঘ সংস্করণ। এ পর্যন্ত অভিষেক টেস্টে শতক করেছেন ১০০ জনেরও বেশি ব্যাটসম্যান।

তবে তাদের মধ্যে তিনজন আলাদা জায়গায় থাকবেন চিরকাল। নিজের তো বটেই, দেশের অভিষেক টেস্টেও শতক করেছিলেন তারা। অস্ট্রেলিয়ার চার্লস ব্যানারম্যান, জিম্বাবুয়ের ডেভ হটন আর বাংলাদেশের আমিনুল ইসলাম বুলবুলের তাই আলাদা সম্মান প্রাপ্য।

২০০০ সালের ১০ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক নাঈমুর রহমান দুর্জয়। আমিনুল যখন ক্রিজে এসেছিলেন, ৪৪ রানে দুই ওপেনার মেহরাব হোসেন ও শাহরিয়ার হোসেনকে হারিয়ে স্বাগতিক দল তখন বেশ অস্বস্তিতে।

প্রায় ১৮ বছর আগে আমিনুল সেই ১৪৫ রানের চিরস্মরণীয় ইনিংসটি খেলতে ৫৩৫ মিনিট ক্রিজে ছিলেন। খেলেছিলেন ৩৮০টি বল। বাউন্ডারি হাকিয়েছিলেন ১৭টি। তার ব্যাটে ভর করেই অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৪০০ রান করতে পেরেছিল বাংলাদেশ।

এবার দেড় যুগ পর পূর্বসূরি আমিনুল ইসলামের রেকর্ড ভাঙলেন মুশফিকুর রহিম।
বাংলাদেশের হয়ে আমিনুল ইসলামের গড়া সময়ের দিক থেকে সবচেয়ে দীর্ঘ ইনিংসের রেকর্ড ভেঙেছেন মুশফিক।

আমিনুল যেখানে ১৪৫ করতে খেলেছিলেন ৫২৫ মিনিট মুশফিক সেখানে ৫৩৬ মিনিট ক্রিজে থেকেছেন। করেছেন অপরাজিত ২১৯ রান। হাঁকিয়েছেন ১৮টি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কা।

সোমবার মিরপুর টেস্টের দ্বিতীয় দিন ঘড়িতে বেলা ২টা ৫৪ মিনিট বাজতেই সেই রেকর্ড নতুন করে লিখান মুশফিক। ৫৩৫ মিনিটে আমিনুল খেলেছিলেন ৩৮০টি বল, ১ মিনিট বেশি খেলা মুশফিক মোকাবিলা করেছেন ৪২১টি বল।

টেস্টে এক ইনিংসে বেশি বল খেলার দিক থেকে এতদিন রেকর্ডটি ছিল আশরাফুলের দখলে। গল টেস্টে ১৯০ করতে ৪১৭ বল খেলেন আশরাফুল। এবার ২১৯ রানের ইনিংসটি সাজাতে ৪২১টি বল খেলে আশরাফুলকেও টপকে গেলেন মুশি। টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে খেলা সবচেয়ে লম্বা ইনিংস এখন এটিই।

এখানেই শেষ নয়, বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে তো বটেই, টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান হিসেবে দুটি ডাবল সেঞ্চুরি করে ইতিহাসে নাম লিখিয়ে ফেললেন সাবেক টেস্ট অধিনায়ক মুশফিক। যেখানে আজকের পর থেকে অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, কুমারা সাঙ্গাকারা কিংবা মাহেন্দ্র সিং ধোনিদের মতো স্বীকৃতি উইকেটকিপারদের উপরে থাকবে মুশফিকের নাম।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে স্বীকৃত উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মাত্র ৮ জনের টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড আছে। এ তালিকায় আছেন ইমতিয়াজ আহমেদ, অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার, কুমার সাঙ্গাকারা, মহেন্দ্র সিং ধোনি, অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, তসলিম আরিফ, ব্রেন্ডন কুরুপ্পু ও মুশফিক। তাঁদের মধ্যে শুধু মুশফিকেরই দুটি ডাবল সেঞ্চুরি।

এদিকে এতদিন টেস্টে সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি ছিল সাকিব আল হাসানের দখলে (২১৭)। এর আগে সেটি ছিল তামিকের দখলে (২০৬)। এবার ২১৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে দুই সতীর্থকেও ছাড়িয়ে সবার আগে সবার উপড়ে আরোহন করলেন মিস্টার ডিপেন্ডেবল মুশফিকুর রহিম।