বৈঠকে ঐক্যফ্রন্ট, আসছে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত

রবিবার, নভেম্বর ৪, ২০১৮

ঢাকা: ভবিষ্যৎ কর্ম-পরিকল্পনা নির্ধারণ করতে এবং ৬ নভেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জনসভায় প্রস্তুতি ঠিক করতে বৈঠকে বসেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় কমিটির সদস্যরা।

রোববার বিকেল সাড়ে ৪টায় মতিঝিল গণফোরামের অফিসে এই বৈঠক শুরু হয়। গণফেরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানিয়েছে, বর্তমান সংবিধানের ভেতরে থেকেই নির্বাচনকালীন অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের রূপরেখা দেবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। ফ্রন্টের প্রধান শরিক দল বিএনপির তৈরি ‘সহায়ক সরকারের রূপরেখা’কে সামনে রেখে এই প্রস্তাব তৈরি করা হচ্ছে।

এর আগে শনিবার রাতে রাজধানীর মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সংসদ ভেঙে, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একাদশ সংসদ নির্বাচনের দাবি তোলা জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গত রোববার সংলাপের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি পাঠায়। পরদিনই সংলাপে রাজি হওয়ার কথা জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে ১ নভেম্বর গণভবনে অনুষ্ঠিত হয় বহু আলোচিত সেই সংলাপ। তবে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে কোনো সমাধান না পাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন ঐফ্রন্টের নেতা কামাল হোসেন। এর আগে অবশ্য সংলাপ শেষে বের হয়েই মির্জা ফখরুল ‘সন্তুষ্ট’ নন বলে জানান।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে প্রথম দফা সংলাপে ‘সমাধান’ না আসায় ফের আলোচনায় বসতে চায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এজন্য দ্বিতীয় দফা সংলাপে বসতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন সরকারবিরোধী নতুন এই জোট।

ফ্রন্ট সূত্র বলছে, সময় দিলেই নির্বাচনকালীন অন্তর্বর্তীকালীন সরকার গঠনের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে তোলা হবে। এক্ষেত্রে তিনি সময় না দিলে পরবর্তী সময়ে এই প্রস্তাব সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তুলে ধরা হবে। এর আগে পছন্দের আইনজীবী ও সংবিধান বিশেষজ্ঞদের নিয়ে বৈঠক করবে ঐক্যফ্রন্ট।