৪ নভেম্বর তফসিল ঘোষণা হতে পারে

বুধবার, অক্টোবর ২৪, ২০১৮

ঢাকা: আগামী ৪ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করতে পারে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ওই দিন জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে তফসিল ঘোষণা করবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, জাতির উদ্দেশ্যে সিইসির ভাষণের জন্য কমিশন থেকে একটি চিঠি বাংলাদেশ টেলিভিশনকে (বিটিভি) পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে ৪ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন সিইসি কেএম নূরুল হুদা, এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

ওই ভাষণের মাধ্যমে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হতে পারে। আগামী ৩ নভেম্বর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে এই ভাষণ রেকর্ডের সার্বিক প্রস্তুতি নেয়া হবে।

২০১৩ সালের ২৫ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণদানকালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছিলেন তৎকালীনণ সিইসি রকিব উদ্দীন আহমেদ। সেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি।

এদিকে তফসিলের আগে আগামী ১ নভেম্বর বিকেল ৪টায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন সিইসি ও নির্বাচন কমিশনারা। সাক্ষাতে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে অবহিত করবেন নির্বাচন কমিশন।

আগামী ৩০ অক্টোবর থেকে সংসদ নির্বাচনের ক্ষণ গণনা শুরু হবে। আগামী ২৮ জানুয়ারির মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

সর্বশেষ দশম সংসদ নির্বাচনের আগে তৎকালীন সিইসির নেতৃত্বে ২০১৩ সালের ১৯ নভেম্বর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাত হয়। তার এক সপ্তাহের মাথায় ২৫ নভেম্বর ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হয়।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের পর আমরা আরেকটি কমিশন সভা করবো। ওই সভাতেই তফসিল চূড়ান্ত হবে। নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে বলে জানান তিনি।

সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম থেকে চতুর্থ শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার সূচিতে পরিবর্তন এনেছে সরকার। আগামী ১১-১৮ ডিসেম্বর এই পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও এখন ২৯ নভেম্বর থেকে ৬ ডিসেম্বরের মধ্যে তা শেষ করতে আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।