ক্যাফেতে পায়ের ওপর সাঁতার কাটছে মাছ!

শনিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৮

ঢাকা : নাগরিক জীবনের সীমাহীন ব্যস্ততা ভুলে প্রিয়জনের সঙ্গে নিরিবিলি বসে সুখের মুহূর্তগুলো ভাগাভাগি করতে পছন্দ করেন সবাই। আর তাই একটু সুযোগ পেলেই প্রিয়জন, পরিবার-পরিজনকে নিয়ে সময় কাটান বিনোদন কেন্দ্রে, ক্যাফে, রেস্টুরেন্টে।

শুধু খাওয়াই নয়, ব্যস্ততাকে ছুটি দিয়ে একটু নিরিবিলি সময় কাটানোর জন্য প্রিয়জনের সঙ্গে মাঝে মধ্যেই রেস্টুরেন্টে খেতে যান অনেকে। ক্যাফেতে বসে প্রিয়জনের সঙ্গে সুখের মুহূর্ত উপভোগ করছেন, আর জলে ডুবে থাকা আপনার পায়ের ওপর সাঁতার কাটছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। ভাবুন তো, যদি কোনো ক্যাফেতে বসে আপনি এরকম ভিন্ন কোনো অনুভূতি পান, তবে কেমন লাগবে।

একদিকে ক্যাফেতে বসে প্রিয়জনের সঙ্গে সুখের মুহূর্ত উপভোগ করছেন, আর অন্যদিকে জলে ডুবে থাকা আপনার পায়ের ওপর সাঁতার কাটছে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। এরকমই একটি ব্যাতিক্রমি ক্যাফে অ্যানিমেল ক্যাফে। ক্যাফেটি ভিয়েতনামের হো চি মিন শহরে অবস্থিত।

অ্যানিমেল ক্যাফেতে গেলে আপনি এক কাপ গরম কফি উপভোগ করতে পারবেন। সঙ্গে পাবেন বিড়াল, কুকুরের মতো অত্যন্ত আদুরে সব পোষা প্রাণী। কিন্তু ভিয়েতনামের এমিক্স কফি পৃথিবীর একমাত্র ক্যাফে, যেখানে গেলে আপনি পাবেন এক অন্যরকম অনুভূতি। এমক্সি কফি ক্যাফেতে রয়েছে দুটি প্লাবিত মেঝে। আর সেখানে ছাড়া রয়েছে ছোট-বড় শত শত মাছ।

এই ক্যাফেতে আপনি চেয়ারে বসে থাকবেন, আর আপনার পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত ডুবে থাকবে পানিতে। প্রিয়জনের মুখোমুখি বসে কফিতে চুমুক দিচ্ছেন, আর আপনার পায়ের ওপর সাঁতার কাটছে হরেক রঙের দৃষ্টিনন্দন মাছ।

রঙবেরঙের মাছের এই ক্যাফেতে প্রবেশ করতে হলে আপনাকে দুটি কাজ অবশ্যই করতে হবে, আর তা হলো জুতা খুলে বাইরে রাখতে হবে এবং পা পরিস্কার করে তারপর ঢুকতে হবে। তবেই আপনি প্রিয়জনের সঙ্গে সেখানে আপনার সেরা মুহূর্তটি কাটাতে পারবেন। অন্যথায় আপনি সেখানে প্রবেশের অনুমতি পাবেন না। এমিক্স ক্যাফের এই আইডিয়া এসেছে ২৩ বছরের তরুণ গুইয়েন ডক হোয়ার মাথা থেকে। তিনি চেয়েছিলেন অ্যানিমেল ক্যাফের ধারণায় ভিন্নমাত্রা যোগ করতে।