রিয়াদ পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

বুধবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৮

ঢাকা : চারদিনের সফরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রিয়াদ পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফর সঙ্গীদের নিয়ে বাদশাহ খালেদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

রিয়াদে পৌঁছলে সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ, রিয়াদের গভর্নর ফয়সাল বিন আল সউদ এবং দূতাবাস কর্মকর্তারা বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান।

বুধবার বিকেলে শেখ হাসিনা সৌদি রাজপ্রাসাদে বাদশাহ সালমানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এবং পরে মধ্যাহ্নভোজে যোগ দিবেন। সৌদি যুবরাজ ও উপ-প্রধানমন্ত্রী এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোহাম্মদ বিন সালমান বিন আবদুল আজিজের সঙ্গেও এক বৈঠকে মিলিত হবেন প্রধানমন্ত্রী। পরে তিনি সৌদি রাজধানী রিয়াদের কূটনৈতিক এলাকায় বাংলাদেশ চ্যান্সেরি ভবনের উদ্বোধন করবেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী তার স্যুটে কাউন্সিল অব সৌদি চেম্বার (সিএসসি) এবং রিয়াদ চেম্বার অব কমার্সের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

পরবর্তীতে সন্ধায় বিমানযোগে পবিত্র নগরী মদিনার উদ্দেশে রিয়াদ ত্যাগ করবেন এবং মসজিদে নববীতে মহানবী হযরত মোহম্মদ (স.) এর রওজা জিয়ারত করবেন তিনি।

সেখান থেকে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী জেদ্দা পৌঁছাবেন এবং সেখানে বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেলের চ্যান্সেরি ভবনের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন।

শেখ হাসিনা এশার নামাজের পর মক্কায় পবিত্র ওমরাহ পালন করবেন এবং পরদিন শুক্রবার সকালে দেশের উদ্দেশে রওয়ানা হবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, সৌদি সফরে প্রতিরক্ষা ও তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তিতে সহযোগিতার বিষয়ে দুটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা নাগরিকদের নিজ দেশে নিরাপদ প্রত্যাবাসনের বিষয়টি আলোচনা করা হবে দুই দেশের শীর্ষপ্রধানের মধ্যে বৈঠকে।

দারিদ্র্য ও শোষণমূক্ত জ্ঞান-ভিত্তিক উন্নত দেশ গঠনে বিভিন্ন খাতে ভবিষ্যতে সৌদি আরবের অংশীদারত্ব বাড়ানোর সম্ভাবনা নিয়ে সৌদি বাদশাহের সাথে আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া মুসলিম উম্মাহর বৃহত্তর ঐক্য ও সমৃদ্ধি, দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য-বিনিয়োগ ও উন্নয়ন সহায়তা, শ্রম খাত সেইসাথে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতার বিষয় এ বৈঠকে প্রাধান্য পাবে বলে আশা করা যাচ্ছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ সফরের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে আগামী দিনগুলোতে সম্পর্ক আরো দৃঢ় হবে।

রসঙ্গত ২০১৪ সালে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আসার পর এটি হবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চতুর্থ সৌদি আরব সফর। চলতি বছরের এপ্রিল মাসেই সৌদি নেতৃত্বাধীন ২৩ দেশের যৌথ সামরিক মহড়ার সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তিনি সর্বশেষ সৌদি আরব গিয়েছিলেন।