ময়মনসিংহে বন্ধুকযুদ্ধে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

রবিবার, অক্টোবর ১৪, ২০১৮

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি : ময়মনসিংহ নগরীর কালিবাড়ী এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিশেষ মাদক বিরোধী অভিযান চলাকালে গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্ধুকযুদ্ধে মোঃ শরীফ (৩২) নামে এক ব্যাক্তি নিহত হয়েছে।

রবিবার (১৪ অক্টোবর ) মধ্যরাত পৌনে ২ টার দিকে নগরীর কালিবাড়ি বাইলেন এসকে হাসপাতালের পেছনের এলাকায় এ বন্ধুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ১০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৫ কেজি গাঁজা ও ১২ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দ এই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সুত্রে জানাযায়, শরীফ নগরীর কৃষ্টপুর দৌলত মুন্সি বাইলেন এলাকার নাজিম উদ্দিন প্রকাশ ওরফে হাত কাটা নাজিম উদ্দিনের ছেলে। রবিবার মধ্যরাতে ডিবি ওসি এবং ওসি তদন্তের নেতৃত্বে ডিবি’র দুইটি চৌকশ টিম নগরীর কালিবাড়ি এলাকায় বিশেষ মাদক বিরোধী অভিযান চলাকালে ব্যারিষ্টার সাঈদ আব্দুল্লাহ আল মামুন খানের বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তার পাশে পৌছলে অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জন মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট, পাটকেল নিক্ষেপসহ এলোপাথারী আক্রমন শুরু করে। এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোঁড়ে।

এসময় গুলা গুলির একপর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। তখন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শরীফ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পরে থাকতে দেখে চিকিৎসার জন্য দ্রুত ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দ বলেন, শরীফ নগরীর শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও ডাকাত দলের সদস্য ছিল। তার বিরুদ্ধে মাদক, ডাকাতি, মারামারি ও হত্যাসহ ৭ টিরও বেশি মামলা রয়েছে। এছাড়াও তিনি পুলিশের কাছ থেকে পলাতক এবং ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামি ছিলেন।

এঘটনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ডিবির কনস্টেবল মোঃ শামীম হোসেন ও মোঃ সেলিম মিয়া নামে ২ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তাদেরকে উদ্ধার করে জেলা পুলিশ লাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ওসি আরও জানান, শরীফ পুলিশের ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামি ছিলেন। তার বিরুদ্ধে মাদক, ডাকাতি, মারামরি ও হত্যাসহ ৭ টিরও বেশি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ১০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৫ কেজি গাঁজা ও ১২ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

এঘটনায় কোতোয়ালী মডেল থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানিয়েছেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।