‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে’ কেন নেই বি.চৌধুরী: বিবিসিকে ফখরুলের ব্যাখ্যা

রবিবার, অক্টোবর ১৪, ২০১৮

নিউজ ডেস্ক: একই মঞ্চ থেকে জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার পথচলা শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত বিকল্পধারাকে বাইরে রেখেই গতকাল শনিবার (১৩ অক্টোবর) ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ এর চূড়ান্ত ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি, গণফোরাম, নাগরিক ঐক্য ও জেএসডি।

কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে সদ্য গঠিত এই ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে’ কেন বাইরে রাখা হলো সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে।

রবিবার (১৪ অক্টোবর) বিবিসি বাংলাকে দেয়া এক দীর্ঘ সাক্ষাৎকারে এ বিষয়গুলো নিয়েই কথা বলেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সাক্ষাৎকারের শুরুতেই এ সংক্রান্ত প্রশ্নে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জোট গড়ার বৈঠকগুলোতে ‘কিছু বিষয়ে চাপ সৃষ্টি করে সমস্যা তৈরি করছিল’ বিকল্পধারা। তবে এখানে কোনও ষড়যন্ত্র নেই, নিজেদের সিদ্ধান্তেই তারা জোটে আসেনি।’

তবে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ ৭ দফা দাবি ও ১১টি লক্ষ্যকে সামনে রেখে এই ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’ আগামী দিনগুলোতে রাজপথের আন্দোলন-সংগ্রামে এক মঞ্চে কর্মসূচি দেবে বলে জানান মির্জা ফখরুল।

গতকাল একই সময়ে ডাকা সংবাদ সম্মেলনে বিকল্পধারা প্রেসিডেন্ট বি. চৌধুরী ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে’ জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি সামনে আনেন। এবং তিনি বলেন, ‘আমি এখনো জাতীয় ঐক্য চাই। বিএনপির সঙ্গে ঐক্যে আপত্তি নেই। কিন্তু বিএনপিকে স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গ ছাড়তে হবে। ক্ষমতার ভারসাম্যের রাজনীতির শর্ত মেনে নিতে হবে। জাতীয় ঐক্যের নামে বিএনপিকে এককভাবে ক্ষমতায় বসানোর ‘চক্রান্তের’ সঙ্গে বিকল্পধারা নেই।’

এ বিষয়ে বিবিসির প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এটা একেবারেই অমূলক। এর পেছনে কোনও যুক্তি বা সত্যতা নেই। তারাই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে তারা আসবেন না। আগের দিনও তাদের সাথে কথা হয়েছে, তাদের দাবি বা বক্তব্য আমাদের লক্ষ্যগুলোর মধ্যে চলে এসেছে। তারা সবাই একমত ছিলেন। সেখানে কেন তারা নতুন ষড়যন্ত্র দেখতে পাচ্ছেন আমি জানি না।’

বিএনপির মহাসচিব এ প্রসঙ্গে বিবিসিকে আরও বলেন, ‘আমরা প্রথম থেকেই লক্ষ্য করেছিলাম যে কতগুলো বিষয়ে অযথা চাপ তৈরি করে একটা সমস্যা তৈরি করা হয়েছে। যাই হোক, আমরা এ বিষয়ে বেশি কথা বলতে চাই না।’

বি. চৌধুরীর বিকল্পধারা ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে’ যোগ দিলে আগামী দিনের গণতন্ত্রের আন্দোলন আরও জোরদার হতো বলেও মনে করেন ফখরুল। তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করি, তারা (বিকল্পধারা) ঐক্যে ফিরে আসবেন।’